Date : 2019-08-26

দুঁদে বিজ্ঞানীদের পিছনে ফেলে সমুদ্র পরিষ্কারে জাহাজ বানাল খুদে বালক!

ওয়েব ডেস্ক: মাত্রাছাড়া দূষণে ভারাক্রান্ত হচ্ছে প্রকৃতি। পৃথিবীর ৭০ ভাগ দেশে জলবায়ুর অবস্থা সঙ্কটজনক অবস্থায় আছে। এর প্রতিকার খুঁজতে বিশ্বের খ্যাতনামা বিজ্ঞানীরা যখন মাথা ঘামাচ্ছে তখন চমকে দেওয়ার মতো সমাধান সূত্র নিয়ে হাজির এক কিশোর। মাত্র ১২ বছর বয়সে সে আবিষ্কার করে ফেলেছে সমুদ্র পরিষ্কার করার জাহাজ। সমুদ্রে প্রতিদিন টন টন বর্জ্য পদার্থ সমুদ্রে ফেলা হয়। আর তাতেই প্রতিদিন দূষিত হচ্ছে সমুদ্রের জল। সেই সমস্যার সমাধানে রীতিমতো টক্কর দিয়ে পুনের বাসিন্দা হাজিক কাজি নামে কিশোর আবিষ্কার করে ফেলল এক বিশেষ জাহাজের, যার মাধ্যমে সমু্দ্রে বর্জ্য পদার্থ ছেঁকে নিয়ে ফেলে দেওয়া সম্ভব হবে। গ্লোবাল অর্গানাইজেশন টেডএক্স ও টেড৮-এর ইভেন্টে এই কিশোরের বুদ্ধি ও নতুন আবিষ্কারের নমুনা দেখে তাজ্জব বনে গেলেন গবেষকরা।

তার আবিষ্কৃত জাহাজের নামকরনও করে ফেলেছে সে। জাহাজটির নাম দিয়েছে ‘এরভিস’। জল দূষণ রোধ করার সঙ্গে সঙ্গে এই জাহাজ সামুদ্রিক প্রানীদের বেঁচে থাকার সাহায্য করবে। জাহাজ আবিষ্কারের পর সে জানায়, কিছু তথ্যচিত্র দেখে সামুদ্রিক জীবনে বর্জ্য কতটা প্রভাব ফেলে তার উপলব্ধি করতে পেরেছিল। তখন থেকেই তার মনে হয়েছিল নতুন কিছু ভবনার প্রয়োজন আছে। যে মাছ রোজ খাওয়ার মেনুতে থাকে তারা সমুদ্র দূষণের জন্য তারা প্লাস্টিক খেয়ে ফেলছে। প্লাস্টিক চক্রাকারে ঘুরছে আমাদের জীবনে। আর সেখান থেকেই এরভিস-এর মতো জাহাজ তৈরী করার কথা ভাবেন সে। বিশেষ ধরনের এই জাহাজ সমুদ্রের প্লাস্টিক শোষন করে নেওয়ার ক্ষমতা রাখে। এরফলে সমুদ্র প্লাসটিক বর্জ্য মুক্ত হবে। সামুদ্রিক জীবনযাত্রাকে ব্যহত না করে কাজ করবে কাজির এই এরভিস। সাইজ অনুযায়ী যাতে প্লাস্টিক আলাদা আলাদা করে বেছে নিতে পারে মেশিনটি তার জন্য একটি সেনসরও দেওয়া রয়েছে এতে।