Date : 2020-10-31

শীত যাপনে গন্তব্য লাল পাহাড়ির দেশ…

পুরুলিয়া: ক্যালেন্ডার মেনে জানুয়ারির প্রায় শেষ হতে চলছে। যদিও গোটা বাংলা জুরে এখনও শীতের ইনিংস শেষ হয়নি। বর্ষবরণের আমেজ মিটলেও বাঙালির মন এখনো ভ্রমণ পিপাসু। তাই কাছে পিঠে কয়েক দিনের ছোট্ট ভ্রমণের অন্যতম ঠিকানা এখন লাল পাহাড়ের বুকে জেগে থাকা পশ্চিমের জেলা পুরুলিয়া। অপূর্ব প্রকৃতিক সৌন্দর্য ঘেরা পুরুলিয়ার অযোধ্যা পাহাড়ের পাকদন্ডি পথে রয়েছে হিল টপে নদীর উত্সস্থল, একাধিক ঝর্ণা, আপার ও লোয়ার ড্যাম যা সহজেই নজর কাড়ে পর্যটকদের। এছাড়া রয়েছে বাঘমুন্ডি ব্লকের পাহাড় ও জঙ্গল ঘেরা কইরাবেড়া জলাধারের নান্দনিক দৃশ্য।

ঝালদা-২ ব্লকের মুরগুমা জলাধার, কাঁসাই নদীর পাড়ে দেউলঘাটা, বান্দোয়ানে কুইলাপাল, দুয়ারশিনী, মানবাজারের দোলাডাঙ্গা, রঘুনাথপুরের জয়চণ্ডী পাহাড়, সাঁতুড়ির বড়ন্তি জলাধার, নিতুড়িয়ার পাঞ্চেত জলাধার, পঞ্চকোট পাহাড় ছাড়াও খ্যাতিহীন প্রচুর পর্যটন কেন্দ্র জেলাজুরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। পুরুলিয়ায় রয়েছে ঐতিহাসিক স্থাপত্য ও পুরাকীর্তির নিদর্শন সম্বলিত দেউল। পুরুলিয়ায় প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে আরও আকর্ষনীয় করে তুলতে এবং পুরুলিয়া জেলায় পর্যটন শিল্পের প্রসার ঘটাতে রাজ্য সরকারের উদ্যোগে আয়োজন করা হল ‘বেঙ্গল ট্যুরিজম ফেস্টিভ্যাল ২০১৯’। রাজ্যের পর্যটন বিভাগের উদ্যোগে এই ট্যুরিজম ফেস্টিভ্যাল চলবে তিন দিন ধরে।  পুরুলিয়া শহরের রাঁচী রোডে অবস্থিত চার্চ গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত ওই ফেস্টিভ্যাল ২১ জানুয়ারি থেকে চলবে ২৩ জানুয়ারি পর্যন্ত। ভৌগলিকভাবে মালভুমি অঞ্চলের মধ্যে থাকা এই জেলায় পাহাড়, জঙ্গল, জলাধার, ঝর্ণা পর্যটকদের আকর্ষণ করে। সম্পদ এবং উন্নত পরিকাঠামোর উন্নয়নে পর্যটন মানচিত্রে পুরুলিয়ার মতো  বৈচিত্রপূর্ণ প্রকৃতিক সৌন্দর্য সম্বলিত এই জেলা আরও উঁচু স্থানে নিয়ে যেতেই রাজ্য সরকারের এই উদ্যোগ। পুরুলিয়া জেলা পর্যটন সেল “বেঙ্গল ট্যুরিজম ফেস্টিভ্যাল ২০১৯”-র আয়োজন করেছে। এই ধরনের উদ্যোগ আগামী দিনে এই সব স্থানে পর্যটন শিল্পকে আরও সমৃদ্ধ করে তুলবে বলে আশা জেলা প্রশাসনের। তিন দিনের এই ট্যুরিজিম ফেস্টিভ্যালে থাকছে  রাজ্যের বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রের তথ্য, বুকিং-এ আকর্ষনীয় ছাড়, কলকাতার ট্যুর এণ্ড ট্রাভেলস এবং জেলার দুটি ট্রাভেল এজেন্সিগুলি তাদের নানা সুযোগ সুবিধা সম্পর্কিত নানা তথ্য। বিভিন্ন বিভাগে জন্য থাকছে বিভিন্ন স্টল। সেখানে আলোকচিত্র, প্রতিযোগিতামূলক প্রদর্শনী ও হস্তশিল্প প্রদর্শনী থাকছে, আর থাকছে সাংস্কৃতিক মঞ্চ য়েখানে জনপ্রিয় শিল্পীরা সঙ্গীত পরিবেশন করে ট্যুরিজম ফেস্টিভ্যালকে আরো আকর্ষণীয় করে তুলবে পর্যটকদের কাছে|