Date : 2020-11-01

সংক্রান্তিতে পূণ্যার্থীর ভিড় সাগরসঙ্গমে

গঙ্গাসাগর: পৌষ সংক্রান্তিতে পূণ্য স্নানের জন্য প্রতি বছরের মতো এবছরও বহু মানুষ ভিড় জমিয়েছেন গঙ্গাসাগরে। এক সময় প্রবাদ ছিল, ‘সব তীর্থ বারবার,গঙ্গাসাগর একবার’। কিন্তু বর্তমানে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতিসাধনে এখন আর একবার গঙ্গাসাগর নয়। যতবার মন চায় ততবার যাওয়া যায় সাগরে। মঙ্গলবার মকর সংক্রান্তি। এদিন কপিল মুনির আশ্রমে ভিড় জমিয়েছে লক্ষাধিক পুণ্যার্থী। ভোর থেকে শুরু হয়েছে পুণ্যস্নানের পালা। মকর সংক্রান্তির পূণ্যস্নানের জন্য বিশেষ ভাবে সেজে উঠছে গঙ্গাসাগর। দুর্ঘটনা এড়াতে ড্রোন ও হেলিকপ্টারের মাধ্যমে চলছে জোরদার নজরদারি। রয়েছে পুলিশ কুকুরও। পুণ্যার্থীদের যাতে কোনও রকম সমস্যায় না পড়েন সেদিকে নজর রাখছে প্রশাসন। স্নানের সময়ও যাতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তারজন্য ডুবুরি থেকে শুরু করে অসামরিক প্রতিরক্ষা বাহিনীকে তৈরি রেখেছে প্রশাসন। প্রচণ্ড শীতেও টলানো যায়নি পুণ্যার্থীদের। দূর থেকে দেখলে মনে হবে জনসমুদ্র। মেলা চত্বরে রয়েছে ৮০০টি সিসি টিভি এবং ২০০টি বেলুন ক্যামেরা। কলকাতার বাবুঘাট হয়ে তীর্থযাত্রীরা মেলার দিকে এগোচ্ছেন। সেখানেও রয়েছে পুলিশি ব্যবস্থা। এছাড়া দক্ষিণ ২৪ পরগণার কচুবেড়িয়া হয়ে সাগরে যাওয়ার রাস্তাতেও রয়েছেন নিরাপত্তা কর্মীরা। কুম্ভমেলা এই বছর না থাকায় রাজ্য সরকার তুলনামূলক বেশি মানুষের আগমন সম্ভব ভেবে আগেভাগেই প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। বাড়তি ট্রেন, ভ্যাসেল, স্যাটেলাইট মোবাইল, নিরাপত্তা, টয়লেট-এর পাশাপাশি রাত্রিযাপনের উপযুক্ত ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে।