Date : 2020-10-24

সচ্ছতা বজায় রাখতে রিটার্নিং অফিসারদের বিশেষ ট্রেনিং

ওয়েব ডেস্ক: নির্বাচনে সচ্ছতা বজায় রাখতে এবার নির্বাচন কমিশন বিশেষ প্রশিক্ষনের ব্যবস্থার পদক্ষেপ নিতে চলেছে। রাজ্যের সব রিটার্নিং অফিসারদের বিশেষ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে চলেছে নির্বাচন কমিশন। প্রশিক্ষন শেষে নেওয়া হবে পরীক্ষা। তবে এই পরীক্ষায় পাশ ফেলের বাধ্যতা নেই। নির্বাচন কমিশনের বার্তা যাতে সমস্ত মানুষের মধ্যে পৌঁছায় এবং সুষ্ঠ ভাবে নির্বাচন প্রক্রিয়াকে পরিচালনা করা যায় সেই লক্ষ্যেই এই ব্যবস্থা গ্রহণ করতে চলেছে নির্বাচন কমিশন। সোমবার কলকাতায় বেঙ্গল চেম্বার অফ কমার্সে নির্বাচন কমিশনের তরফে প্রশিক্ষণ দেওয়া হল পশ্চিমবঙ্গের ৪২ জন রিটার্নিং অফিসারকে। এই প্রশিক্ষণ চলবে মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত। প্রশিক্ষণ শেষে পরীক্ষা নিয়ে দেখা হবে নির্বাচন কমিশনের এই পদ্ধতি আগামী লোকসভা নির্বাচনে কতটা কাজে আসতে চলেছে। তবে অন্যান্য বারের থেকে এবারের প্রশিক্ষণের বেশ কিছু নতুন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে নির্বাচন কমিশন। বিশেষ করে প্রার্থীদের নমিনেশন এবং গণনা কেন্দ্রে নতুন পদ্ধতি আনা হচ্ছে যার ফলে স্বচ্ছতা যেমন বজায় থাকবে তেমনি দ্রুততার সঙ্গে ফলাফল ঘোষণা করা যাবে। গুগল সার্ভার ভাড়া নিয়ে ইতিমধ্যে নির্বাচন কমিশন তৈরী করে ফেলেছে নতুন অ্যাপ। এর মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন নির্বাচন সংক্রান্ত সমস্থ তথ্য নিজেদের আয়ত্তে রাখতে পারবে। এবং দ্রুততার সঙ্গে সমস্ত তথ্য জানতে পারবে। পাশাপাশি নির্বাচন কমিশন প্রত্যেক রাজ্যের মুখ্য সচিবকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছে, রাজ্যের কোন অফিসার কে যদি বদলি করার থাকলে তাহলে ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে করতে হবে সেই কাজ। ২৮ ফেব্রুয়ারির পর বদলি করা যাবে না। যদি কাউকে বদলি করতে হয় তবে নির্বাচন কমিশনের অনুমতি নিয়ে তা করতে হবে। নির্বাচন কমিশন সূত্রে এমনটাই জানানো হয়েছে। ২৮ ফেব্রুয়ারির পর থেকে এই নিয়ম চালু করতে চলেছে নির্বাচন কমিশন। এখনো পর্যন্ত লাগু হয়নি নির্বাচনবিধি। লোকসভা ভোটের আগেই নির্দেশিকা পৌঁছে যাচ্ছে রাজ্যের কাছে। এই পদ্ধতি অবলম্বনের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন সচ্ছ ভোট প্রক্রিয়া পরিচালনার বার্তা দিচ্ছেন এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।