Date : 2020-10-24

ভারতের এই গ্রামের কোন বাড়িতেই দরজা নেই

ওয়েব ডেস্কঃ কথায় আছে বিশ্বাসে মেলায় বস্তু, তর্কে বহুদূর| আর সেই বিশ্বাসের উপর নির্ভর করে বেঁচে আছে মহারাষ্ট্রের একটি প্রত্যন্ত অঞ্চলের গ্রাম শনি শিঙ্গনাপুর| প্রায় ৫ হাজার আখ চাষিদের বসবাস গ্রামে| সাধারণ এই গ্রাম দীর্ঘদিন ধরে সংংবাদ শিরোনামে উঠে আসার কারণ শুনলে আপনিও অবাক হবেন| গ্রামের বাড়ি গুলোতে কোন দরজাই নেই| বাড়ির এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত উন্মুক্ত| কোন দরজাই নেই সেখানে| সবসময় খোলা থাকে ঘরের দরজা| এবার ভাবছেন তাহলে বোধহয় গ্রামে অবাধ যাতায়াত চোরের| কিন্তু অবাক ঘটনা, এলাকার সব বাড়ি খোলা থাকলেও চুরী করেনা চোর| আগল খোলা থাকলেও টাকা পয়সা, গয়না সবই যথা স্থানে পেয়ে যাবেন| চুরি হয় না। চুরি কে করবে? চোরই যে নেই সেই গ্রামে। তাই থানাও নেই।ঐ গ্রামের রক্ষাকর্তা শনিদেব| গ্রামের লোকের বিশ্বাস অলক্ষ্যে তিনি সমস্থ সম্পদ রক্ষা করেন|আর সেই বিশ্বাসের জেরে দেশে একমাত্র এই গ্রামের ইউকো ব্যাঙ্কের শাখায় কোনও দরজায় তালা লাগানোর ব্যবস্থা নেই।শোনা যায়, প্রায় ৩০০ বছর ধরে এই রেওয়াজ চলছে মহারাষ্ট্রের শিঙ্গনাপুর গ্রামে। শনি শিঙ্গনাপুর এখন আর গ্রাম নেই। লোককথায় শোনা যায় শনি ঠাকুর স্বপ্নাদেশ পেয়েছিলেন কোন এক ব্যক্তি| সেই বিশ্বাস থেকেই চলে আসছে দরজা না রাখার রেওয়াজ। এছাড়াও বহু বছর আগে বন্যার জলে গ্রামে ভেসে এসেছিল শনি দেবতার মুর্তি| আর সেই মুর্তিকেই পরম বিশ্বাসে পুজো করার রেওয়াজ চলে আসছে এই গ্রামে|মূর্তির কল্যাণেই সকলের বিশ্বাস, শনিদেবতা থাকতে চোর কোনও কিছু স্পর্শ করার সাহসই পাবে না।