Date : 2020-12-03

সঙ্গে থাকার সংকল্প

ওয়েব ডেস্ক : পুলওয়ামা হামলায় শহীদদের পরিবারের পাশে এবার রাহুল ফাউন্ডেশন। দুর্গাপুরের রাজবাঁধের উদ্যোগপতি রাহুল ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আর এন মজুমদার মানবিকতার এক নতুন নজির গড়লেন। পুলওয়ামা হামলায় নিহত বীর শহীদদের পরিবারের সন্তান-সন্ততিদের নিখরচায় কেজি টু পিজি পড়াশুনো ও হস্টেলের সুযোগ দেওয়া হবে রাহুল ফাউন্ডেশনে। ইতিমধ্যেই বাংলার বীর সন্তান শহীদ বাবলু সাঁতরার পরিবারকে এই প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। আরপ্লাস নিউজ  বৈদ্যুতিন সংবাদমাধ্যম ও রাহুল ফাউন্ডেশনের এই দৃষ্টান্তকারী ভূমিকার মধ্য দিয়ে মিস্টার মজুমদার আবারও প্রমাণ করলেন দেশের প্রতি দশের প্রতি তাঁর গভীর অনুভব ও দায়বদ্ধতাকে। স্বভাবতই রাজ্যের সংবেদনশীল ও শুভবুদ্ধিসম্পন্ন নাগরিকরা রাহুল ফাউন্ডেশনের এই পদক্ষেপের প্রশংসা করলেন।

রাজনৈতিক ভাষ্যকার অধ্যাপক বিমল শঙ্কর নন্দ জানালেন যাঁরা প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে আমাদের প্রাণকে রক্ষা করে, তাঁদের সংকটে রাহুল ফাউন্ডেশনের এই উদ্যোগ শুধু প্রশংসাযোগ্য নয় বাংলার শিল্প ও বাণিজ্য জগতে এক উল্লেখযোগ্য দৃষ্টান্ত। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক রাজা গোপাল ধর চক্রবর্তী রাহুল ফাউন্ডেশনের কর্ণধার আর এন মজুমদারকে ধন্যবাদ জানালেন, তাঁর এই দেশপ্রেমিক মনোভাবের জন্য। আইবির প্রাক্তন  আইজি পঙ্কজ দত্ত জানালেন পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে প্রথম চ্যানেল ও কর্পোরেট সেক্টর হিসেবে আরপ্লাস নিউজ ও রাহুল ফাউন্ডেশন দেশাত্মবোধের প্রশ্নে পথপ্রদর্শক হয়ে থাকবে। সন্ত্রাসবাদের থাবায় জখম তরতাজা প্রাণের আহুতিতে গোটা দেশবাসীর চোখে জল, ঠিক তখনই শোকস্তব্ধ শহীদদের পরিবারদের দিকে রাহুল ফাউন্ডেশন এভাবেই সবঙ্গে থাকার সংকল্প নিয়েছে শহীদের সন্তানদের শিক্ষাদানের অঙ্গীকারে। কারণ রাহুল ফাউন্ডেশনের কর্ণধার গভীর জীবনবোধ দিয়ে অনুভব করেছেন প্রকৃত শিক্ষাই পারে শক্তিশালী দেশ গঠন করতে।