Date : 2019-03-22

Breaking
২০১৮ এর তুলনায় ২০১৯ এ আরও অসুখী ভারত। রাষ্ট্রপুঞ্জের সুখী সূচকে সাত ধাপ নামল ভারত। সুখী সূচকে ভারতের আগে রয়েছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, চিন।
ফের উত্তপ্ত উপত্যকা। জম্মু- কাশ্মীরের সোপোরে ,সেনা জঙ্গি গুলির লড়াই। নিকেশ ২ জঙ্গি। আরও জঙ্গির লুকিয়ে থাকার আশঙ্কা। এলাকা ঘিরে তল্লাশি সিআরপিএফ – জম্মু কাশ্মীর পুলিশের।
প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর হতাশা রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি রাজকমল পাঠক। রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তিনি।
কেউ পচা আলুর ঝোল খেতে চাইলে খাক। উন্নয়নের নিরিখে ভোট হবে। সেই ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস জয়ী হবে। কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিককে কটাক্ষ উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের।
তৃণমূলের বহিস্কৃত নেতা নিশীথ প্রামানিক কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী। প্রতিবাদে দলীয় অফিস ভাঙচুর। পদত্যাগের হুঁশিয়ারী জেলার বহু বিজেপি নেতার। জেলা সভাপতির গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ।
বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা। ঘাটালের উন্নয়নে সাহায্য করেছিলেন তিনি। রাজনৈতিক লড়াই হলেও সৌজন্য থাকবে। ট্যুইটারে ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা জানালেন তৃণমূল প্রার্থী দেব।
পশ্চিমবঙ্গের ২৮ আসনে বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশ। প্রার্থী তালিকায় চমক। ঘাটালে ভারতী ঘোষ। ব্যারাকপুরে প্রার্থী অর্জুন সিং। হুগলি কেন্দ্রে লকেট চট্টোপাধ্যায়।
দলে আরও ব্রাত্য হলেন আডবানী। এবার গান্ধীনগর কেন্দ্রে বর্ষীয়ান নেতা আডবানীকে টিকিট দিল না বিজেপি। আডবানীর গান্ধীনগর কেন্দ্রে ভোটে লড়বেন অমিত শাহ।
লোকসভা ভোটের প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ বিজেপির। বারানসি থেকেই ভোটে লড়বেন মোদী। রাহুলের বিরুদ্ধে আমেঠিতে প্রার্থী স্মৃতি ইরানি।

সায়েন্স সিটিতে শুরু হচ্ছে ফুলডোম থ্রি ডি ডিজিটাল থিয়েটার

ওয়েব ডেস্ক: প্রযুক্তির অদল-বদল করে আরও আধুনিক আকারে চালু হতে চলেছে সায়েন্স সিটির ‘ফুলডোম থ্রি ডি ডিজিটাল থিয়েটার’। চোখ ধাঁধানো ছবি ও প্রযুক্তি নিয়ে শহরবাসীকে অন্যন্য সুন্দর প্রযুক্তির কোরামতি উপহার দিতে চলেছে সাইন্স সিটি। কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রী মহেশ শর্মা সায়েন্স সিটিতে থ্রি ডি থিয়েটারের উদ্বোধন করেন। প্রদর্শনীর প্রথম দিন থাকছে মাত্র দুটি ছবি।

মোট ৬টি প্রজেক্টরে টু ডি ও থ্রি ডি ফিল্ম দেখানো হবে। এর সঙ্গে বিশেষ ধরনের পাওয়ার ডোম সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়েছে। জার্মানির একটি সংস্থাকে এই নতুন প্রযুক্তি বসানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। এদিন এই নতুন প্রযুক্তিতে যে ছবি দেখানো হল, তা মুগ্ধ করে দেওয়ার মতো।

আপাতত সায়েন্স সিটিতে গেলে যে দুটি ফিল্ম দেখা যাবে সেগুলি হল, দি লাইফ অব ট্রিজ এবং অ্যাস্টেরয়েড, মিশন এক্সট্রিম। ৩০ -৩৫ মিনিটে ছবি দুটি দেখতে হবে চোখে চশমা পরে। চশমার মধ্যেই আছে যত কেরামতি। বৃষ্টির ফোটা যেন গায়ে পড়বে। কীট পতঙ্গ উড়ে এসে বসবে আপনার গায়ে, বাস্তবে নয় কিন্তু সবই আসলে থ্রি ডি-এর কামাল। টিকিটের দাম মাত্র ১২০ টাকা।

সায়েন্স সিটির অধিকর্তা শুভব্রত চৌধুরী বলেন, “আগে আমরা বছরে দু’টি ছবি প্রদর্শন করতে পারতাম। কিন্তু এখন রোজ দু’টি করে ছবি দেখাতে পারবে দর্শকরা। আগামীদিনে এর সংখ্যা বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। ইংরেজি, বাংলা ও হিন্দিতে যাতে দেখানো যায় তার চেষ্টাও চলছে।” তবে সাবধান, থ্রি ডি চশমা দেখতে গিয়ে ভেঙে ফেললে ৪ হাজার টাকা জরিমানা অপেক্ষা করবে আপনার জন্য।