Date : 2019-03-22

Breaking
২০১৮ এর তুলনায় ২০১৯ এ আরও অসুখী ভারত। রাষ্ট্রপুঞ্জের সুখী সূচকে সাত ধাপ নামল ভারত। সুখী সূচকে ভারতের আগে রয়েছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, চিন।
ফের উত্তপ্ত উপত্যকা। জম্মু- কাশ্মীরের সোপোরে ,সেনা জঙ্গি গুলির লড়াই। নিকেশ ২ জঙ্গি। আরও জঙ্গির লুকিয়ে থাকার আশঙ্কা। এলাকা ঘিরে তল্লাশি সিআরপিএফ – জম্মু কাশ্মীর পুলিশের।
প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর হতাশা রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি রাজকমল পাঠক। রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তিনি।
কেউ পচা আলুর ঝোল খেতে চাইলে খাক। উন্নয়নের নিরিখে ভোট হবে। সেই ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস জয়ী হবে। কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিককে কটাক্ষ উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের।
তৃণমূলের বহিস্কৃত নেতা নিশীথ প্রামানিক কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী। প্রতিবাদে দলীয় অফিস ভাঙচুর। পদত্যাগের হুঁশিয়ারী জেলার বহু বিজেপি নেতার। জেলা সভাপতির গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ।
বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা। ঘাটালের উন্নয়নে সাহায্য করেছিলেন তিনি। রাজনৈতিক লড়াই হলেও সৌজন্য থাকবে। ট্যুইটারে ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা জানালেন তৃণমূল প্রার্থী দেব।
পশ্চিমবঙ্গের ২৮ আসনে বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশ। প্রার্থী তালিকায় চমক। ঘাটালে ভারতী ঘোষ। ব্যারাকপুরে প্রার্থী অর্জুন সিং। হুগলি কেন্দ্রে লকেট চট্টোপাধ্যায়।
দলে আরও ব্রাত্য হলেন আডবানী। এবার গান্ধীনগর কেন্দ্রে বর্ষীয়ান নেতা আডবানীকে টিকিট দিল না বিজেপি। আডবানীর গান্ধীনগর কেন্দ্রে ভোটে লড়বেন অমিত শাহ।
লোকসভা ভোটের প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ বিজেপির। বারানসি থেকেই ভোটে লড়বেন মোদী। রাহুলের বিরুদ্ধে আমেঠিতে প্রার্থী স্মৃতি ইরানি।

দল বেঁধে ওরা প্যান্ট খুলে মেট্রোয় চড়ছেন, কিন্তু কেন?

ওয়েব ডেস্ক: কখনও ভেবে দেখেছেন, ব্যস্ত অফিস টাইমে নাকে-মুখে গুঁজে মেট্রো ধরতে ছুটছেন। টিকিটও কাটলেন। প্ল্যাটফর্মে আসতেই মেট্রো হাজির। কিন্তু দরজা খুলতেই আপনার চক্ষু চড়কগাছ।

কোনো যাত্রীরই পরনে নেই প্যান্ট। ভাবছেন এরম আবার হয় নাকি? তবে শুনলে আপনি অবাক হবেন বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ১২টি দেশে টিউব রেল বা মেট্রো রেলে চড়লে এমন দৃশ্য খুবই স্বাভাবিক। ‘নো প্যান্টস সাবওয়ে রাইড’ নামের একটি বিশেষ উদ্যোগে সামিল হয়েছেন অনেকেই।

এই উদ্যোগের প্রধান শর্ত যাত্রীদের ট্রাউজার খুলে টিউব রেল বা মেট্রো রেলে যাত্রা করতে হবে। এই অভিনব উদ্যোগের জন্ম আজ থেকে ১৭ বছর আগে, ২০০২ সালে এই ‘নো প্যান্ট সাবওয়ে রাইড’প্রথম চালু হয়েছিল নিউ ইয়র্কে। সেখানকার একটি কমেডি পারফরম্যান্স আর্ট গ্রুপ ‘ইমপ্রুভ এভরিহয়্যার’ উদ্যোগে এই ‘নো প্যান্ট সাবওয়ে রাইড’-এর পথ চলা শুরু হয়।

সে বছর প্রায় ১৫০ জন অংশ নিয়েছিলেন ‘ইমপ্রুভ এভরিহয়্যার’-এর এই উদ্যোগে। কিন্তু এই উদ্যোগের উদ্দেশ্য কি ছিল? নিত্যযাত্রীদের দৈনন্দিন একঘেয়ে জীবনে একটু আনন্দ দিতেই তারা এই বিশেষ উদ্যোগ নেন। বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ১২টি দেশে পালিত হয় এই ‘নো প্যান্ট সাবওয়ে রাইড’ কর্মসূচি।

সেই তালিকায় রয়েছে বার্লিন, বস্টন, প্রাগ, পোল্যান্ড, ফিলাডেলফিয়া প্রভৃতি দেশের নাম । ২০১৬ সালে এই দলে নাম লিখিয়েছে মস্কোও। তবে শুধুই মানুষকে আনন্দ দিতেই নয়, ওই ট্রাউজারগুলি দুঃস্থদের মধ্যে বিতরণও করা