Date : 2019-03-22

Breaking
২০১৮ এর তুলনায় ২০১৯ এ আরও অসুখী ভারত। রাষ্ট্রপুঞ্জের সুখী সূচকে সাত ধাপ নামল ভারত। সুখী সূচকে ভারতের আগে রয়েছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, চিন।
ফের উত্তপ্ত উপত্যকা। জম্মু- কাশ্মীরের সোপোরে ,সেনা জঙ্গি গুলির লড়াই। নিকেশ ২ জঙ্গি। আরও জঙ্গির লুকিয়ে থাকার আশঙ্কা। এলাকা ঘিরে তল্লাশি সিআরপিএফ – জম্মু কাশ্মীর পুলিশের।
প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর হতাশা রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি রাজকমল পাঠক। রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তিনি।
কেউ পচা আলুর ঝোল খেতে চাইলে খাক। উন্নয়নের নিরিখে ভোট হবে। সেই ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস জয়ী হবে। কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিককে কটাক্ষ উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের।
তৃণমূলের বহিস্কৃত নেতা নিশীথ প্রামানিক কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী। প্রতিবাদে দলীয় অফিস ভাঙচুর। পদত্যাগের হুঁশিয়ারী জেলার বহু বিজেপি নেতার। জেলা সভাপতির গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ।
বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা। ঘাটালের উন্নয়নে সাহায্য করেছিলেন তিনি। রাজনৈতিক লড়াই হলেও সৌজন্য থাকবে। ট্যুইটারে ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা জানালেন তৃণমূল প্রার্থী দেব।
পশ্চিমবঙ্গের ২৮ আসনে বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশ। প্রার্থী তালিকায় চমক। ঘাটালে ভারতী ঘোষ। ব্যারাকপুরে প্রার্থী অর্জুন সিং। হুগলি কেন্দ্রে লকেট চট্টোপাধ্যায়।
দলে আরও ব্রাত্য হলেন আডবানী। এবার গান্ধীনগর কেন্দ্রে বর্ষীয়ান নেতা আডবানীকে টিকিট দিল না বিজেপি। আডবানীর গান্ধীনগর কেন্দ্রে ভোটে লড়বেন অমিত শাহ।
লোকসভা ভোটের প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ বিজেপির। বারানসি থেকেই ভোটে লড়বেন মোদী। রাহুলের বিরুদ্ধে আমেঠিতে প্রার্থী স্মৃতি ইরানি।

মানুষকে নির্বাচনে উদ্বুদ্ধ ধোনি-কোহলি প্রচারের অনুরোধ মোদীর

ওয়েব ডেস্ক: একদিকে দেশ জুড়ে চলছে সাধারণ নির্বাচনের প্রস্তুতি, অন্যদিকে বিশ্বকাপ ক্রিকেট। আগামী ২৩ মে চূড়ান্ত হবে দেশের আগামী প্রধানমন্ত্রী কে হচ্ছেন। নির্বাচনকে সফল করতে ক্রিকেট দুনিয়ার তারকাদের বিশেষ আর্জি জানালেন নরেন্দ্র মোদী। নির্বাচনী প্রচারে এবার সবথেকে বড় প্লাটফর্মের রোল প্লে করতে চলেছে স্যোশাল মিডিয়া, সেই কারণে নবপ্রজন্মের ভোটারদের কাছে নির্বাচনের গুরুত্ব বোঝাতে ধোনি-কোহলিদের এগিয়ে আসতে অনুরোধ করেন প্রধানমন্ত্রী। ট্যুইট করে নরেন্দ্র মোদী তার আর্জি জানিয়েছেন। মোদী চান, দেশের প্রতিটি মানুষ যেন ভোট প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করেন। প্রধানমন্ত্রী ট্যুইটে লিখেছেন, “আপনারা সবসময়ই ক্রিকেট মাঠে অসামান্য রেকর্ড গড়েন, কিন্তু এইবার আসন্ন নির্বাচনে ভোটারদের নতুন রেকর্ড স্থাপন করতে ১৩০ কোটি মানুষকে অনুপ্রাণিত করবেন। আর সেটা যখন হবে, তখনই গণতন্ত্রের জয় হবে!” তিন প্রাক্তন ক্রিকেটার অনিল কুম্বলে, ভিভিএস লক্ষ্মণ এবং বীরেন্দ্র সেওয়াগকে ট্যাগ করে নরেন্দ্র মোদী লিখেছেন, “ক্রিকেট পিচে আপনাদের অনেক বীরত্বে লক্ষ লক্ষ মানুষ অনুপ্রাণিত হয়েছে। আসুন, এবার আবার মানুষকে অনুপ্রাণিত করার সময় হয়েছে, এবার রেকর্ড সংখ্যায় ভোট দিতে হাজির হতে হবে।” শুধুমাত্র ক্রিকেট নয়, দেশের ক্রিড়া জগৎ-এর নক্ষত্রদের মানুষকে নির্বাচনমুখী করে তোলার জন্য প্রচারের আহ্বান জানান। এবার নির্বাচনে প্রায় দেড় লক্ষ নতুন ভোটার রয়েছে। দেশ জুড়ে ১০ লক্ষেরও বেশী বুথে নির্বাচন হবে।