Date : 2019-03-22

Breaking
২০১৮ এর তুলনায় ২০১৯ এ আরও অসুখী ভারত। রাষ্ট্রপুঞ্জের সুখী সূচকে সাত ধাপ নামল ভারত। সুখী সূচকে ভারতের আগে রয়েছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, চিন।
ফের উত্তপ্ত উপত্যকা। জম্মু- কাশ্মীরের সোপোরে ,সেনা জঙ্গি গুলির লড়াই। নিকেশ ২ জঙ্গি। আরও জঙ্গির লুকিয়ে থাকার আশঙ্কা। এলাকা ঘিরে তল্লাশি সিআরপিএফ – জম্মু কাশ্মীর পুলিশের।
প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর হতাশা রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি রাজকমল পাঠক। রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তিনি।
কেউ পচা আলুর ঝোল খেতে চাইলে খাক। উন্নয়নের নিরিখে ভোট হবে। সেই ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস জয়ী হবে। কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিককে কটাক্ষ উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের।
তৃণমূলের বহিস্কৃত নেতা নিশীথ প্রামানিক কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী। প্রতিবাদে দলীয় অফিস ভাঙচুর। পদত্যাগের হুঁশিয়ারী জেলার বহু বিজেপি নেতার। জেলা সভাপতির গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ।
বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা। ঘাটালের উন্নয়নে সাহায্য করেছিলেন তিনি। রাজনৈতিক লড়াই হলেও সৌজন্য থাকবে। ট্যুইটারে ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা জানালেন তৃণমূল প্রার্থী দেব।
পশ্চিমবঙ্গের ২৮ আসনে বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশ। প্রার্থী তালিকায় চমক। ঘাটালে ভারতী ঘোষ। ব্যারাকপুরে প্রার্থী অর্জুন সিং। হুগলি কেন্দ্রে লকেট চট্টোপাধ্যায়।
দলে আরও ব্রাত্য হলেন আডবানী। এবার গান্ধীনগর কেন্দ্রে বর্ষীয়ান নেতা আডবানীকে টিকিট দিল না বিজেপি। আডবানীর গান্ধীনগর কেন্দ্রে ভোটে লড়বেন অমিত শাহ।
লোকসভা ভোটের প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ বিজেপির। বারানসি থেকেই ভোটে লড়বেন মোদী। রাহুলের বিরুদ্ধে আমেঠিতে প্রার্থী স্মৃতি ইরানি।

বীরভূমে বাল্যবিবাহ রুখলো সিউড়ি পুলিশ

বীরভূম: মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষিত কন্যাশ্রী প্রকল্প বিশ্বের দরবারে খ্যাতি অর্জন করে এসেছে। তা সত্বেও সাধারণ মানুষের মন মুক্ত হয়নি অন্ধবিশ্বাস থেকে। বীরভূমের সিউড়ি থানার অন্তর্গত খোষনাতের গ্রামে নাবালিকা ছাত্রীর বিয়ে হচ্ছিল নদীয়ার শান্তিপুর নিবাসী এক যুবকের সঙ্গে। খবর পেয়ে বিয়ে রুখে দিল বীরভূম জেলা প্রশাসন। এই খবর সিউড়ি থানায় পৌঁছতেই চাইল্ড লাইনের সাহায্যে সিউড়ি থানার পুলিশ পৌঁছায় নাবালিকার বিবাহ বাসরে। বুধবার বেলা ১১টা নাগাদ নাবালিকার বাড়িতে তখন চলছিল বিয়ের প্রস্তুতি। পুলিশ সেখানে পৌঁছে বাধা দেয় বিয়ের অনুষ্ঠানে। নাবালিকার অভিভাবকদের দিয়ে মুচলেখা লিখিয়ে নেওয়া হয় যে মেয়ের ১৮ বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিতে পারবেন না তারা। প্রথমে মুচলেখা দিতে বাড়ির লোক নারাজ হলেও সিউড়ি থানার পুলিশ, সিউড়ির ২ নম্বর ব্লকের বিডিও ও চাইল্ড লাইনের উপস্থিতিতে তারা মুচলেখা দিতে বাধ্য হন। নাবালিকা স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্রী। সে নিজেও এই বিয়েতে অসম্মতি প্রকাশ করেছে। বিয়ের মরসুমে বীরভূমে একাধিক এলাকায় বাল্যবিবাহ হয়ে থাকে। কন্যাশ্রী প্রকল্প চালু হওয়ার পরেও এলাকায় স্কুল ছুটের সংখ্যা রয়েছে। বিশেষ করে উপজাতি অধ্যুষিত অঞ্চলে বাল্যবিবাহ হয়ে থাকে এখনো।