Date : 2020-10-31

হাতির দাঁত পাচারে মূল চক্রী গ্রেফতার

ওয়েব ডেস্ক: হাতির দাঁতের পাচার করতে গিয়ে কলকাতায় গ্রেফতার দক্ষিণী পরিবার। পরিবারের মুখ্য সদস্য সুদেশচন্দ্র বাবু সোমবার সকালে কেরলের কোট্টায়াম থেকে সাঁতরাগাছিতে এসে পৌঁছান।

অভিযোগ, দক্ষিণ কলকাতার বাড়িতে যাওয়ার সময় কেরলের জঙ্গলের চোরাই হাতির দাঁত নিয়ে যাচ্ছিলেন। খবর পৌঁছাতেই কোনা এক্সপ্রেসওয়ের কছে ডিরেক্টর অফ রেভিনিউ ইন্টালিজেন্সের অফিসাররা তাকে আটক করেন ।

সুদেশ বাবুর গাড়ি থেকেই বাজেয়াপ্ত হয় তিন কিলোগ্রামের বেশি চোরাই হাতির দাঁত। উদ্ধার হওয়া হাতির দাঁতের আনুমানিক বাজার দর প্রায় ৩১ লক্ষ টাকা। এই ঘটনার জেরে ডিআরআই আধিকারিকরা গ্রেফতার করেন সুদেশ বাবু ও তার মেয়ে অমিতাকে।

গোয়েন্দাদের অনুমান চোরাই হাতির দাঁত শিলিগুড়ি দিয়ে নেপালে পাচার করার কথা ছিল তাদের। মঙ্গলবার তাদের আদালতে তোলা হয়। কেরলের বন দফতরের অভিযোগ এদালামার জঙ্গলে চোরা শিকারিদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতেন সুদেশ। চোরা শিকারিদের সঙ্গে শিকার করে হাতির হাঁত কেটে নিয়ে চলে আসতেন সুদেশ। সেই দাঁতই পাচার করতেন নেপালে। অভিযোগ, এই কাজের সঙ্গে জড়িত ছিল তার স্ত্রী, কন্যা এবং ছেলে।

কেরলের বন দফতর থেকে বহুবার কলকাতায় খোঁজ চালিয়েও তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। এখানেই শেষ নয়, বাবা ও মেয়েকে গ্রেফতার করার পর জেরা করে ডিআরআই-এর গোয়েন্দারা সুদেশের বাড়িতে হাতির দাঁতের মূর্তির সন্ধান পান। তল্লাশি করে সেখান থেকে হাতির দাঁতের গয়না, চিরুনি এবং গুঁড়ো উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ৭২ লক্ষ টাকা। হাতির দাঁত পাচার চক্রের এজেন্টদের খোঁজ শুরু করেছে পুলিশ।