Date : 2021-10-24

“ম্যায় ভি চৌকিদার” স্লোগানে ভাসল ব্রিগেড

কলকাতা: লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যে বিজেপির ঘাঁটিকে শক্ত করতে শহরে ব্রিগেড সমাবেশে উপস্থিত হলেন নরেন্দ্র মোদী। শিলিগুড়ির নির্বাচনী প্রচার সভা শেষ করে কলকাতার ব্রিগেড ময়দানের সভামঞ্চের উদ্দেশ্যে রওনা দেন প্রধানমন্ত্রী। বিকেলে দমদম বিমানবন্দর থেকে হেলিকপ্টারে রেসকোর্সের ময়দানে পৌঁছান তিনি। নরেন্দ্র মোদীর উপস্থিতিতে সভাস্থলের বিজেপি কর্মী সমর্থকদের মধ্যে উচ্ছাস ছিল চোখে পড়ার মতো।

“উনি এক্সপায়ারি প্রাইম মিনিস্টার” পাল্টা প্রচার সভা থেকে গর্জে উঠলেন মমতা

এদিন রাজ্যে লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি চুড়ান্ত প্রচার পর্ব সেরে ফেলে। চৈত্রের কাঠফাটা রোদ্দুরে জার্মান হ্যাঙারের ছায়ায় জড়ো হয়েছিল হাজারে হাজারে বিজেপি কর্মী সমর্থক। তীব্র গরমেও ধৈর্য্য নিয়ে প্রতিক্ষায় আকাশের দিকে তাকিয়ে ছিলেন হাজার হাজার সমর্থক, না বৃষ্টির আশায় নয়। কখন হেলিকপ্টার এসে পৌঁছবে রেসকোর্সের ময়দানে।

প্রসঙ্গত, একই দিনে উত্তরবঙ্গের দিনহাটায় নির্বাচনী সভা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ব্রিগেডে বিজেপির সভায় প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য চলাকালীন দিনহাটার নির্বাচনী সভা থেকে বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।পাহাড় থেকে সমুদ্র, ভোট যুদ্ধে এদিন রাজ্য রাজনীতিতে যুযুধান তৃণমূল ও বিজেপির তরজা ছিল তুঙ্গে।

ব্রিগেডের সভায় নরেন্দ্র মোদী রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যাকে আক্রমণ করে বলেন, “বাংলার মানুষের প্রতি আবিচার করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।” তৃণমূল ও কেন্দ্রে কংগ্রেসকে একযোগে আক্রমণ করে মোদী বলেন, “গণতান্ত্রিক দেশে দীর্ঘদিন ধরে পরিবারতন্ত্র চলছে। এবার আমরা এবং আপনারা মিলে এমন সরকার  বানাবো যাতে তৃণমূলের গুন্ডারাজ থেকে বাংলা রক্ষা পাবে।”

কেন্দ্রে ৫ বছরের সরাকারের কাজের খতিয়ান তুলে ধরে নরেন্দ্র মোদী এদিন বলেন, “২০১৪-এ আপনারা ভোট দিয়েছিলেন বলে জঙ্গিদের উপযুক্ত জবাব দিয়েছে কেন্দ্র সরকার। এখন ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় কর মুক্ত। গরিবদের জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণ করেছে কেন্দ্র সরকার।” বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইক প্রসঙ্গে কংগ্রেসকে আক্রমণ করে মোদী বলেন, “দেশবাসী এবং সেনার মনোবল নষ্ট করেছে কংগ্রেস, এদের ষড়যন্ত্র সফল হতে দেব না। কংগ্রেস দেশের সুরক্ষা নিয়ে খেলছে।

ইস্তেহারে সেনা বাহিনীর সুরক্ষা তুলে দিয়েছে কংগ্রেস। এই বিষয়ে কংগ্রেসকে সহায়তা করছে তৃণমূল।” পাশাপাশি মিশন শক্তির কথা তুলে তিনি বলেন, “আমাদের বিজ্ঞানীদের স্যাটলাইট ধ্বংস করার ক্ষমতা আগেও ছিল, তবে আমরাই প্রথম তা সফল করতে বিজ্ঞানীদের উৎসাহ দিয়েছি।” এদিন বাংলার কবিদের, বিপ্লবীদের সম্মান করে তিনি বাংলা ভাষার উৎকর্ষ এবং স্বাধীনতা সংগ্রামে বিপ্লবীদের অবদানের প্রসংশা করেন। সভামঞ্চে বিপুল সংখ্যক কর্মী-সমর্থকদের উপস্থিতিতে তিনি যথেষ্ট উৎসাহিত হন। শিলিগুড়ির সভার মতো ব্রিগেডেও “ম্যায় ভি চৌকিদার” স্লোগানে আবেগে ভেসে যায় উৎসাহি বিজেপি সমর্থকরা।