Date : 2019-05-27

Breaking
কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে পদত্যাগের ইচ্ছাপ্রকাশ রাহুলের। গৃহীত হল না ইস্তফা। রাহুলেই ভরসা কংগ্রেসের। বৈঠকে সংগঠন ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা।
সাম্প্রদায়িক হিংসা ছড়িয়ে জিতেছে বিজেপি। নির্বাচন কমিশন ওদের হয়ে কাজ করেছে। কালীঘাটে বৈঠক শেষে বললেন মুখ্যমন্ত্রী।
পদে থেকেও গত কয়েক মাসে কাজ করতে পারিনি। সেই জন্য মুখ্যমন্ত্রীত্ব ছাড়তে চেয়েছিলাম। দল চায়নি তাই পদত্যাগ করিনি। কালীঘাটে সাংবাদিক বৈঠকে বললেন মুখ্যমন্ত্রী।
ভোটের ফল পর্যালোচনায় কালীঘাটে বৈঠক মুখ্যমন্ত্রীর। আসন কমলেও ভোট বেড়েছে বলে দাবি করেন তিনি। আগামীদিনে এক হয়ে লড়াই করার বার্তা দলীয় কর্মীদের।
আজই সরকার গঠনের দাবি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন নরেন্দ্র মোদী। রাজ্য থেকে বেশ কয়েকজনের মন্ত্রী হওয়ার সম্ভাবনা।
সর্বসম্মতিতে এনডিএ নেতা নির্বাচিত হলেন নরেন্দ্র মোদী। সংসদের সেন্ট্রল হলে পুষ্পস্তবক দিয়ে মোদীকে অভিবাদন। সাক্ষী থাকলেন রাজ্য জয়ী বিজেপি সাংসদরাও।
দেগঙ্গায় তৃণমূল কর্মীদের জোর করে জয় শ্রী রাম বলানোয় সংঘর্ষ বিজেপি-তৃণমূলের। সংঘর্ষে আহত দুইপক্ষের প্রায় ১২ জন। ভাঙচুর করা হয় একাধিক বাড়ি। এলাকায় জারি ১৪৪ ধারা, মোতায়েন বাহিনী।
সম্ভবত ৩০শে মে-ই ফের প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নেবেন মোদী। বিকেল ৪টে থেকে ৫টার মধ্যে রাষ্ট্রপতি ভবনে শপথ। তার আগে ২৮ তারিখ বারাণসীতে মোদীর রোড শো।
দলে থেকেও দলকে হেয় করার অভিযোগ। মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু রায়কে ৬ বছরের জন্য সাসপেন্ড করল তৃণমূল। মুখ্যমন্ত্রীর অনুমোদন নিয়েই সাসপেন্ড। বললেন পার্থ।

ফের শীর্ষ আদালতে ধাক্কা বিরোধীদের, ভি ভি প্যাট নিয়ে পুনর্বিবেচনার আর্জি খারিজ

ওয়েব ডেস্ক: ভি ভি প্যাট মামলায় শীর্ষ আদালতের রায়ে ফের একবার ধাক্কা খেল বিরোধীরা। ৫০% বুথে ভিভিপ্যাটর সঙ্গে ইভিএম মিলিয়ে দেখার আর্জি জানিয়ে ২১টি বিরোধীদল সুপ্রিম কোর্টের কাছে আর্জি জানায়। এই মামলার শুনানিতে মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টে হাজির ছিলেন চন্দ্রবাবু নাইডু, আম আদমি পার্টির সাংসদ, সিপিআই সাংসদ ডি রাজা সহ অন্যান্য বিরোধীরা।

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে এই মামলার আবেদন কার্যত খারিজ করে দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত, কেন্দ্রে মোদী বিরোধী দলের নেতৃত্ব কার্যত এক সুরে ইভিএম-র উপর অনাস্থা প্রকাশ করে। তাদের কথায় ইভিএম-এর কারচুপি আছে কিনা খতিয়ে দেখতে ভি ভি প্যাট স্লিপের সঙ্গে মিলিয়ে দেখা হোক ইভিএম-এর ভোটের সঙ্গে। বিরোধীরা এই দাবি প্রথমে নির্বাচন কমিশনকে জানালেও কমিশন তাদের আর্জি গুরুত্ব সহকারে বিচার না করার অভিযোগে তারা সুপ্রিমকোর্টে মামলা দায়ের করে।

এপ্রিল মাসে নির্বাচনী নির্ঘন্ট জারি হওয়ার পর দেশের শীর্ষ আদালতের পক্ষে জানিয়ে দেওয়া হয়, প্রতিটি লোকসভা কেন্দ্রের বিধানসভা পিছু অন্তত পাঁচটি করে বুথের যে কোন ইভিএমের ফলাফলের সঙ্গে ভি ভি প্যাটের জোড়া পরীক্ষা করা যেতে পারে। কিন্তু বিরোধীরা এই সংখ্যা বাড়িয়ে অন্তত ২৫ শতাংশ করার আবেদন করে শীর্ষ আদালতের কাছে। কিন্তু বিরোধীদের আবেদন কার্যত খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত।

এই মামলার প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, এই রায় আর খতিয়ে দেখা সম্ভব নয়। একই আবেদনের বার বার শুনানি অর্থহীন। সুপ্রিমকোর্ট এই মামলায় কোন ভাবেই তার মত পরিবর্তন করবে না। এদিন মামলার অন্তিম রায় ঘোষণার পর শীর্ষ আদালতের রায়কে হতাশাজনক বলে মন্তব্য করেছেন বিরোধী পক্ষের আইনজীবি অভিষেক মনু সিংভি।