Date : 2022-05-25

কলকাতার ঝালমুড়ি পাড়ি দিল লন্ডনে…

ওয়েব ডেস্ক: কলকাতা মানেই ফাস্ট ফুড। রাস্তায় বেরোনো মানেই ফুটপাথে সারি সারি খাবার দোকানের মেলা। সেই ফাস্ট ফুডের লিস্টে বাদ নেই কোনো নামই। তা ফুচকাই হোক কি ঝালমুড়ি, অথবা রোল, চাউমিন, মোমো বা ভেলপুরি। কলকাতার মানুষ তো বটেই, কলকাতার বাইরের লোকেরা এসেও একবার অন্তত টেস্ট করতে ভোলেন না কলকাতার স্পেশাল ফুডগুলি।

তবে বাইরের বলতে যে শুধু পশ্চিমবঙ্গের বাইরের লোকদের কথাই বলা হচ্ছে তা কিন্তু নয়। সুদূর বিদেশের মাটি থেকেও পর্যটকরা আসেন কলকাতার এই ফাস্ট ফুড একবারের জন্য হলেও টেস্ট করতে। বিশ্বাস হচ্ছে না? তাহলে এবার শুনে নিন এই গল্পটা। আজ থেকে প্রায় ৯ বছর আগে অ্যাঙ্গাস ডানকান নামক এক শেফ কলকাতা ভ্রমণে আসেন। এখানে এসে ও এখানকার খাবার খেয়ে তিনি এই শহর, বাঙালীদের ঐতিহ্য ও বাঙালী খাবার সবকিছুরই প্রেমে পড়েন। তবে সবথেকে যেটার প্রেমে পড়েন তা হল ঝালমুড়ি।

এমন কি এই ঝালমুড়ি বানানো নিয়ে একটি শর্ট ফিল্মও বানানোর কথা ভাবেন লন্ডনবাসী এই ব্যক্তি। তবে গল্পের শেষটা এখানেই নয়। এরপর তিনি ফিরে যান নিজের দেশে। সেখানে গিয়ে খোলেন একটি ঝালমুড়ির দোকান। নাম দেন, The Everybody Love Love Jhalmuri Express।  

গত রবিবার বিশ্বকাপ দেখতে গিয়ে কিছু প্রবাসী ভারতীয় দেখেন একটি ভ্যান দাঁড়িয়ে, যেখানে একজন ব্রিটিশ লোক বিক্রি করছেন ঝালমুড়ি। স্বাভাবিকভাবেই সবারই কৌতুহল হয়। তারা এগিয়ে যায় কি হচ্ছে তা দেখার জন্য। তখনই জানা যায় নেপথ্যের এই কাহিনীটি।

ঠিক কলকাতার ঝালমুড়ি বিক্রেতাদের মতোই সমস্ত উপাদান নিয়ে বসেছেন অ্যাঙ্গাস। সেখানে আছে শুকনো মুড়ি থেকে শুরু করে ছোলা, কেটে রাখা আলু, পিঁয়াজ, নানারকম চাটনি। ভাইরাল হয়েছে অ্যাঙ্গাসের একটি ভিডিও। ট্যুইটারে এই বিষয়ে আগ্রহ দেখিয়েছেন অমিতাভ বচ্চনও। অ্যাঙ্গাসকে যখন জিজ্ঞেস করা হয় তার ঝালমুড়ি প্রেমের কারণ। তখন বলেন ঝালমুড়িই এমন একটি বিষয় যা রান্না করতে হয় না, এবং বানানোও সহজ। তাই তিনি এই খাবারটিকে বেছে নিয়েছেন।