Date : 2021-04-15

মুভি রিভিউ- “শেষ থেকে শুরু”

ওয়েব ডেস্ক: “একটা গল্প যেখানে শেষ হয়, সেখান থেকেই রচিত হয় আরেকটা নতুন গল্পের সুচনা”। “শেষ থেকে শুরু” সিনেমার এই সংলাপটি ট্রেলার মুক্তির পর থেকেই দর্শকদের মুখে মুখে ছেয়ে গিয়েছিল। গত সপ্তাহে ঈদের দিন মুক্তি পেল জিতের ৫০তম সিনেমা।

শুধু তাই নয়,  ৪ বছর পর আবার জিৎ-কোয়েলকে একসাথে দেখার লোভ কেউই সামলাতে পারেনি। তাই পরিচালক থেকে অভিনেতা সকলেই যেন বেশি কিছু দেখাতে গিয়ে কোথাও একটা খামতি রেখে গেলেন। তাই শেষ থেকে শুরুটা আর হল না যেন। তাই আর কথা না বাড়িয়ে উঠে পড়া যাক গল্পের গাড়িতে।

পরিচালক- রাজ চক্রবর্তী

অভিনয়- জিৎ, কোয়েল মল্লিক, ঋতাভরী চক্রবর্তী

ছবির ধরন- ড্রামা

ছবির সময়- ২ ঘন্টা ৪৫ মিনিট

লন্ডন যাওয়ার ফ্লাইটে পরিচয় হয় মাহিদ (জিৎ) ও পূজারিণীর (কোয়েল)। দুজনে দুজনকে পছন্দ করতে শুরু করে। খুব তাড়াতাড়িই সেই পছন্দ গড়ায় প্রেম অবধি। কিন্তু এইসব কিছুর পেছনেই লুকিয়ে থাকে মাহিদের জীবনের বিশাল সত্যি। পারিবারিক অশান্তির জেরে নিজের কাকাকেই ভুল করে খুন করে ফেলে মাহিদ। এই ঘটনার পরই নিজের ভাইকে নিয়ে লন্ডনে চলে আসে মাহিদ। সেখানেই তার দেখা পূজারিণীর সঙ্গে ও শুরু হয় মাহিদের জীবনের এক নতুন অধ্যায়ের। কিন্তু হঠাৎই গর্ভবতী হয় পূজারিণী। ঠিক সেই সময়তেই কিছু পারিবারিক সমস্যার কারণে মাহিদকে ফিরে যেতে হয় ঢাকা।

কাকাকে ভুল করে গুলি করার অপরাধে ও পারিবারিক ব্যাবসার সুবিধার্থে মাহিদকে দেওয়া হয় এক অদ্ভুত শর্ত। যার দরুণ মাহিদকে বিয়ে করতে হয় ফরজানাকে (ঋতাভরী)। এদিকে মাহিদের জামাইবাবু পূজারিণীকে মাহিদের বিরুদ্ধে ভুল বোঝায়। মাহিদ লন্ডনে ফিরে এসে পূজারিণীকে অনেক খোঁজার চেষ্টা করে কিন্তু একজন খুনির সঙ্গে দেখা করতে রাজি হয় না পূজারিণী।

মনের দুঃখে পূজারিণী ফিরে যায় কলকাতা। জীবন যুদ্ধ শুরু হয় দুপক্ষেরই। গল্পটা না হয় এই পর্যন্তই থাক। শেষ পর্যন্ত পূজারিণী আর মাহিদ এক হতে পারল কিনা? নাকি ফরজানা ও পারিবারিক দন্দ্বের জালে আটকে পড়ল মাহিদ? এই  উত্তরটা জানতে গেলে হলে গিয়ে দেখতে হবে “শেষ থেকে শুরু”।

ছবির চিত্রনাট্য ও সংলাপ খুবই জোলো। তবে সবসময়ের মতোই বড় পর্দায় জিৎ ও কোয়েল জুটির কেমিস্ট্রি দর্শকদের মন ছুঁয়েছে। ছবিতে ঋতাভরীর অভিনয় বেশ ভালো। তবে “শেষ থেকে শুরু” রাজ চক্রবর্তীর অন্যান্য সিনেমার থেকে বেশ খানিকটা আলাদা।

সিনেমায় অর্কর সুর মনে দাগ কাটেনি। তবে এপার-বাংলা ও ওপার-বাংলার মেল বন্ধনের চেষ্টাকে অবশ্যই কুর্নিশ জানাতে হয়। বাঙাল ভাষাটাকে হয়তো আরো একটু ভালোভাবে রপ্ত করে তবেই ছবিতে ব্যবহার করলে ভালো হত। ছবির দ্বিতীয়ভাগে গল্পের বিস্তৃতি একটু কম হতে পারত। সবমিলিয়ে জিৎ-কোয়েলের চেনা রোমান্স আর একবার দেখতে চাইলে হলমুখী হতেই পারেন “শেষ থেকে শুরু”  দেখতে।