Date : 2021-02-26

ফেলে দেওয়া প্লাস্টিক জড়ো করে তাতে গাছ লাগিয়ে পরিবেশ বাঁচান প্রত্যন্ত গ্রামের এই চাষী…

ওয়েব ডেস্ক: অ-নিষ্পত্তিযোগ্য প্লাস্টিকে ভরে গেছে সারা দেশ। তার সংখ্যা কিভাবে কম করা যায়, সেই উপায়ের খোঁজেই আজ সকলে। তবে যদি সেই ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকগুলিকে রিসাইকেল করে তাতেই লাগানো হয় কিছু গাছ, তবে কেমন হয়? ঠিক এইভাবেই এক ঢিলে দুই পাখি মারার প্ল্যানে সফল হলেন কর্ণাটকের বীরেশ নেগালি নামক এক ব্যাক্তি।

বীরেশের কাজটা হল অনেকটা এরকম, তিনি হোটেল, বিভিন্ন দোকান, পানের দোকান ইত্যাদি জায়গা থেকে প্লাস্টিক সংগ্রহ করেন। বিশেষত প্লাস্টিক ব্যাগ, ও নানারকমের ট্রেগুলি বাড়িতে নিয়ে আসেন। সেখানে ছোটো ছোটো গাছ এনে সেই বস্তুগুলিতে বসান। প্লাস্টিকের পাত্রগুলিকে প্রথমে পরিষ্কার করে, তাতে মাটি ভরে, সার দিয়ে বসান গাছগুলিকে।

মাত্র ৫ টাকায় মিলবে ইডলি, জেনে নিন সেই দোকানের খোঁজ…

তবে শুধু প্লাস্টিকের পাত্রই নয়, তিনি রাস্তা থেকে তুলে আনেন চকলেট, সুপারি ইত্যাদির প্লাস্টিকও। যতটা পারেন তার আশেপাশে প্লাস্টিক পড়ে থাকলেই তা তিনি তুলে আনেন। কটুমাচাগি গ্রামের এই কৃষক যে এমন একটি অভিনব ভাবনায় উদ্বুত হতে পারে তাতে গর্ববোধ করছেন কর্ণাটকবাসীরা। তিনি আরও বলেন, এটা তাঁর তরফ থেকে এটা একটা ছোট পদক্ষেপ।

যত খুশি খান, বাড়বে না বিল! অবিশ্বাস্য অফার Zomato-র…

তিনি এর মাধ্যমে প্রতিটি মানুষের মনে সচেতনতা জাগাতে চান। তিনি সবাইকে জানাতে চান যে, প্লাস্টিক ফেলে দেওয়াটাই একমাত্র উপায় নয়। তাকে কি ভাবে ব্যবহার করা উচিৎ সেটাই সবার জানা উচিৎ। আর সেই কারণেই বীরেশ যেকোনো জন্মদিন, বিয়ে, স্কুলের অনুষ্ঠানে এই গাছুগুলি বিক্রি করেন।

ছেলের ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য তুলে রাখা টাকা, কেরালা রিলিফ ফান্ডে দিল বাবা…

তাঁর আশেপাশের লোকজন প্রথম প্রথম তাঁর কীর্তিকলাপ দেখে হাসলেও পরে সেইসব মানুষেরাই অনেক সাহায্য করেছে। প্রায় একবছরের উপর ধরে এই কাজটি করছেন তিনি। ইতিমধ্যেই বেশ নামও করেছেন বীরেশ তার লোকালয়ে। তিনি চান, যেন সবাই তাঁরই মতো ভাবে, এবং চেষ্টা করে পরিবেশকে বাঁচানোর।