Date : 2019-09-18

আগাম জামিনের আবেদনের গুরুত্বই রইল না, ৫দিনের সিবিআই হেফাজত চিদম্বরমের…

ওয়েব ডেস্ক: শেষ পর্যন্ত রক্ষা হল না। আইএনএক্স মিডিয়া দুর্নীতি মামলায় অভিযুক্ত প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমকে ৭ দিনের সিবিআই হেফাজতের নির্দেশ দিল সিবিআই আদালত।

আগামী ২৬ অগস্ট পর্যন্ত তাঁকে সিবিআই হেফাজতেই রাখা হবে।

এই সময় আইনজীবীদের সঙ্গে তিনি যোগাযোগ করতে দিনে আধঘন্টা করে সময় পাবেন।

প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী হিসাবে তাঁকে জেরা করার সময় সিবিআই তদন্তকারীদের অবশ্যই তাঁর সম্মানের বিষয়টি মনে রাখতে হবে।

আরও পড়ুন: দিনভর নাটকের অবসান, রাতে পাঁচিল টপকে চিদাম্বরমকে গ্রেফতার করল সিবিআই

এদিন সিবিআইএর তরফের আইনজীবী জানান, তদন্তে কোনভাবেই সাহায্য করছেন না প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী। তাই তাকে সিবিআই হেফাজতে নিতে হবে। চিদাম্বরমকে হেফাজতে নিলে তদন্তে কতটা সুবিধা হতে পারে এ নিয়ে বলতে গিয়ে সুপ্রিম কোর্টের একটি রায় উল্লেখ করেন তুষার মেহতা। তাই সিবিআই-এর সুবিধা মতো ৫ দিন চিদম্বরমকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করতে পারবেন। এমনকি ইডিও জেরা করতে পারেন চিদম্বরমকে। এদিকে গ্রেফতার হয়ে যাওয়ার কারণে সুপ্রিম কোর্টে চিদম্বরমের আগাম জামিনের আর কোন গুরুত্ব রইল না। এদিকে এই মামলায় মূল অভিযুক্ত কার্তি চিদম্বরম এবং পিটার ও ইন্দ্রাণী মুখার্জিও এই মুহুর্তে জামিনে আছেন বলে জানান চিদম্বরমের আইনজীবী কপিল সিব্বল।

আরও পড়ুন : অযোধ্যায় রাম মন্দিরে হলে “সোনার ইট” দিতে চান এই মোঘল উত্তরসূরী

কপিল আরও জানান, আইএনএক্স মিডিয়াকে বিদেশি বিনিয়োগ পাইয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র চিদাম্বরমের একার ছিল না। ফরেন ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন বোর্ড এই সিদ্ধান্ত নেয়। তিনি ওই বোর্ডের প্রধান হলেও আরও ৬ সচিবের ভূমিকা রয়েছে। কিন্তু তাঁদের গ্রেফতার করা হয়নি বলে জানান কপিল সিব্বল। সিব্বল আরও বলেন, চিদাম্বরমকে গতকাল থেকে গ্রেফতার করা হলেও বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ নাগাদ প্রশ্ন করা হয়।

তাঁকে ১২টি প্রশ্ন করা হয়েছিল, যার মধ্যে ৬টি প্রশ্ন এর আগে একাধিকবার জিজ্ঞাসা করা হয়। এরপর চিদাম্বরমের দ্বিতীয় আইনজীবী অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি ওঠেন সওয়াল করতে। তাঁর প্রশ্ন, এই মামলায় অভিযুক্ত ইন্দ্রাণী মুখার্জির বয়ানের ভিত্তিতে কীভাবে তাঁর মক্কেলকে গ্রেফতার করা হয়। তদন্তে চিদাম্বরম চুপ থেকেছেন তুষার মেহতা যে অভিযোগ করেন, সেই প্রসঙ্গে মনু সিঙ্ঘভি বলেন, তদন্তকারীদের পছন্দ মতো উত্তর না দিতে পারা মানে চুপ করা নয়। এদিন অভিষেক মনু সিংভি জানান, চিদম্বরমের জামিন নাকচ হয়ে যেতে পারে দুটি কারণে, প্রমাণ লোপাট ও ফেরার হওয়া। কিন্তু এগুলো কোনটাই চিদম্বরম করেননি।