Date : 2019-08-18

ফেলে দেওয়া প্লাস্টিককে রিসাইকেল করে মেঘালয়ে তৈরি করা হচ্ছে “প্লাস্টিক রোড”…

ওয়েব ডেস্ক: ভারতের প্রথম প্লাস্টিক ফ্রি শহরের তকমা আগেই পেয়েছিল সিকিম। ভারতের প্রথম অর্গ্যানিক স্টেটের পালক জুড়ে গিয়েছিল এই শহরের নামের সঙ্গে। এবার সেই তালিকায় যোগ হয়েছে আরেকটি জায়গার নাম।

তা হল, মেঘালয়। যাকে সাধারণত বলা হয় মেঘের শহর। মেঘালয় শহর থেকে একটু উচ্চতায় উঠলেই বোঝা যায় এই নামের মানে। মনে হয় যেন মেঘেদের দল ভিড় করে আছে মানুষের ছোঁয়ার অপেক্ষায়ই।

এছাড়াও পাহাড়, ঝরনার মত প্রাকৃতিক সৌন্দর্য তো আছেই। এবার মেঘালয় শহর উঠে পড়ে লেগেছে শহরকে প্লাস্টিক ফ্রি বানানোর উদ্দেশ্যে।

সারা পৃথিবীর মানুষ যখন খুঁজে চলেছে কিভাবে প্লাস্টিক নামক দানবের হাত থেকে মুক্তি পাওয়া যায়, সেই জায়গায় দাঁড়িয়েই মেঘালয়ে করা হয়েছে এক অভিনব প্রক্রিয়া।

ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকগুলিকে রিসাইকেল করে তৈরি করা হচ্ছে রাস্তা। হ্যাঁ, একদম ঠিক পড়েছেন। এমন একটি অভিনব প্রয়াসকে স্যলুট জানাতে হয়। মেঘালয়ের সরকার ও সেখানকার অধিবাসীরা সবাই মিলেই এমন একটি সিদ্ধান্তে উপিনিত হয়েছেন তাঁরা।

প্লাস্টিকগুলিকে একটি পাত্রে এক জায়গায় করে তাকে রিসাইকেলিং মেশিনে ফেলে তৈারি করা হচ্ছে রাস্তা তৈরির সরঞ্জাম। কিছু মাসের মধ্যে মেঘালয়কে তকমা দেওয়া হবে প্লাস্টিক ফ্রি জোনের।

মেঘালয়ের আগে খাসি জেলার নঙ্গক্যানজঙ গ্রামে (Nongkynjang village) এই ভাবনাটি বাস্তবায়ন করা হয়, তারপর ওড়িষার কিছু জায়গাও রাস্তা তৈরিতে সঙ্গী বানান প্লাস্টিককে।

তবে এই অভিনয় ভাবনার পিছনে যে ব্যাক্তি আছেন তাঁকে ধন্যবাদ না জানালে সবটাই যেন অপূর্ণ রয়ে যায় কোথাও।

এমন অনন্য কল্পনার এক এবং অনত্যম প্রতিষ্ঠাতা হলেন প্রফেসর রাজাগোপালন বাসুদেবন। অন্যান্য রাজ্যগুলি যদি এমন একটি উদ্যোগ নিতে পারে, পৃথিবীকে প্লাস্টিক থেকে মুক্ত করতে চায়, তাহলে আমরা কেন পারব না?