Date : 2019-08-18

ধরা দিলেন রামায়ণের “জটায়ু”? দেখুন ভিডিও….

ওয়েব ডেস্ক: রামায়ণের অরণ্যকাণ্ডের কথা নিশ্চয়ই মনে আছে। বড় বড় চোখ, গায়ের সাদাকালো পালক, সুদৃঢ় চঞ্চু, আর বিস্তৃত ডানাওয়ালা পাখীটি ছিলেন গরুর পুত্র জটায়ু। সীতাকে হরণ করে নিয়ে যাওয়ার সময় লঙ্কাধিপতি রাবণের সামনে সবচেয়ে বড় বাধা হয়ে যে দাঁড়িয়েছিলেন সে বৃদ্ধ জটায়ু। সামান্য বনের পাখী হয়ে দশাননের সঙ্গে লড়াই করতে পিছ পা হননি।

ছাড় পাননি রাবণের আঘাত থেকে। জটায়ুকে পরাস্ত করতে একের পর এক রাবণের তলোয়ারের আঘাত এসে পড়েছিল তাঁর ডানায়। বহু লড়াই করেও শেষ পর্যন্ত যদিও হেরে গিয়েছিলেন তিনি। সেই জটায়ুকে নাকি আবার দেখতে পাওয়া গেল এই কলিযুগে!

ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করেনি আর প্লাস নিউজ

আরও পড়ুন : ভালোবেসে নিজের কম্বলকেই বিয়ে করলেন এই মহিলা

এমনই দাবি করেছে মধ্যপ্রদেশের মুরাদাবাদের একটি পরিবার। ঘটনাটি ২০১১ সালের, এমন একটি পাখীকে জঙ্গল থেকে উদ্ধার করে এনেছেন ওই পরিবারের সদস্যরা।

তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিওটি পোস্ট করার পর মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়। সত্যিই কি তবে জটায়ু এখনও আছে?

আরও পড়ুন : শূন্যে ভাসছে মন্দিরের থাম! কাপড় রাখলেই হবে সৌভাগ্যপ্রাপ্তি

মুরাদাবাদের গ্রামের ওই পরিবারটির দাবি পাখীটি আহত অবস্থায় জঙ্গলে পড়েছিল সিক্ত অবস্থায়। আকারে সাধারণ পাখীর থেকে অনেকটাই বড়। বড় বড় চোখ, ঠোঁট আছে। দেখলে মনে হতেই পারে সত্যিই অন্য দুনিয়া থেকে এসেছে সে।

R Plus Live TV

আরও পড়ুন : অম্বুবাচীতে যে ৬টি নিয়ম পালন করলে আপনি সুখী হবেন

পাখীটি এতই বড় যে তাকে ধরে রাখতে রীতিমতো শিকল দিয়ে বাঁধতে হয়েছে। নেটিজেনদের বক্তব্য এই পাখীটি ভগবানের অবতার। শেষে পাখীটির খোঁজ পেয়ে ওই পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে পশু বিশেষজ্ঞ ও স্থানীয় প্রশাসন। অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানা যায় এই পাখীটি বিরল প্রজাতির শকুন গোত্রীয়।

এই গোত্রের শকুন পরজীবী হয়। মধ্যপ্রদেশের ঘন পাহাড়ি অঞ্চলে এই প্রজাতির পাখীর সন্ধান মেলে। পাখীটি আহত থাকায় তার চিকিৎসার জন্য শেষমেশ বন দফতরের হাতে তুলে দেওয়া হয় ওই পরিবারের তরফে। সুতরাং ভিডিওর সপক্ষে এই পাখী জটায়ু বলে কোন প্রমাণই পাওয়া যায়নি।