Date : 2019-09-19

অনুকরণ করে সাফল্যকে বেশিদিন ধরে রাখা যায় না, রানুর উদ্দেশ্যে বললেন লতা মঙ্গেশকর…

ওয়েব ডেস্ক: বেশ কিছুদিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে শিরোনামে পৌঁছেছে রাণাঘাটের রানু। তাঁর পরিচয় আলাদা করে না দিলেও চলবে। রানুদিকে চেনেনা এমন মানুষ খুব কমই পাওয়া যাবে।

লতা মঙ্গেশকরের “এক প্যয়ার কা নগমা”গানটি গেয়েই মূলত সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হন তিনি। ভাইরাল তাঁর গান নিয়ে মাতামাতির খবর পৌঁছেছে স্বয়ং নাইটেঙ্গলের কাছেও।

রানুর এই যাত্রা শুনে সুরসম্রাজ্ঞী লতা মঙ্গেশকর তাকে জানালেন শুভেচ্ছা। বললেন, “যদি আমার কাজ এবং গান কোনও মানুষের ভালো করে বা উপকার করে, তাহলে নিজেকে ভাগ্যবতী মনে হয়।” রানুর সাফল্যকে কোনওরকম ভাবে ছোট না করেও কিন্তু লতা বলেন, “আমি মনে করি শুধু অনুকরণ করে সাফল্যকে বেশিদিন বিশ্বাসযোগ্য ভাবে ধরে রাখা যায় না। উঠতি গায়ক-গায়িকারা আমার, কিশোরদার, রফি সাহাব, মুকেশ ভাইয়া কিংবা আশার গান গেয়ে সাময়িক স্টারডম পান ঠিকই, তবে এর স্থায়িত্ব বেশিদিনের নয়।”

এই প্রসঙ্গে লতা আরও বলেন, “অনেকেই খুব সুন্দর করে আমার গান করেন। কিন্তু তাঁদের ক’জনকে পরবর্তী সময়ে লোকে মনে রাখে? আমার তো শ্রেয়া ঘোষাল আর সুনিধি চৌহান ছাড়া আর কারও কথা মনেই পড়ছে না।” নতুন প্রজন্মের গায়ক-গায়িকাদের জন্য লতাজির বার্তা, “প্রবাদপ্রতিম শিল্পীদের গান অবশ্যই গাও। কিন্তু একটা সময়ের পর নিজস্বতা প্রয়োজন। তাহলেই লোকে তোমায় মনে রাখবে।” এ প্রসঙ্গে নিজের বোন আশা ভোঁসলের উদাহরণ টেনে বলেন, “যদি আশা কেবল আমার ছায়ায় থাকত, নিজস্ব স্টাইলে গান না গাইত, তাহলে আজ ও এত সফল হতো না। নিজস্বতা বজায় থাকলে মানুষ কতদূর পৌঁছতে পারে, আশা তাঁর আদর্শ উদাহরণ।”