Date : 2019-11-19

দিলীপ ঘোষের স্বর্ণনালি তত্ত্বের জের, গরু নিয়ে গোল্ড লোনের অফিসে চাষি….

ওয়েব ডেস্ক: সোনা বন্ধক দিলে ঋণ পাওয়া যায়। আর সোনা এখন নেহাতই সহজলভ্য, মাঠে ঘাটে গেলেই মিলবে সোনা উৎপাদনকারীদের দেখা। রাজ্য বিজেপি সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষের বয়ানের ভিত্তিতে অন্তত সেটাই মনে হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় যতই ট্রোলড হোক, সেই তত্ত্বকেই বিশ্বাস করে নিজের গরু নিয়ে গোল্ড লোন নিতে গেলেন এক কৃষক। ঘটনাটি ঘটেছে হুগলির চণ্ডিতলার গরলগাছি এলাকায়। পেশায় চাষি সুশান্ত মণ্ডল একটি প্রমাণ মাপের গরু এবং একটি বাছুর নিয়ে চলে গেলেন একটি গোল্ড লোনের অফিসে। তাঁর দাবি, এই গরু আর বাছুর জমা রেখে তাঁকে ঋণ দেওয়া হোক। তিনি ব্যবসা বাড়াবেন। ২০টি গরু আছে সুশান্তবাবুর। তিনি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, “কয়েক দিন ধরেই মিডিয়াতে দিলীপ ঘোষের কথা শুনেছি। উনি বলেছেন গরুর কুঁজে স্বর্ণনালি আছে। তাতে সূর্যের আলো পড়লেই সোনা বেরোবে। তাই আমি গিয়েছিলা। লোন পেলে ব্যবসা বাড়ানোর ইচ্ছে ছিল। কিন্তু ওরা নিতেই চাইল না।” গোল্ড লোন না মেলায় ওই চাষি গরু নিয়ে সোজা হাজির হন স্থানীয় তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধানের বাড়িতে। সেখানে গিয়ে তিনি বলেন, গরু রেখে যেভাবেই হোক তাকে গোল্ড লোন পাইয়ে দেওয়া হোক। শুধু এই চাষি নয়, তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধানের দাবি এই সবই ঘটছে দিলীপবাবুর বলা কথার জন্য। এর আগেও বেশ কয়েকজন এই ভাবেই গরু রেখে লোন দাবি করেছেন। দিলীপবাবু পরামর্শের সুরে বলেছেন, “জার্সি গরুর দুধে ভারতীয় গরুর মতো গুণ নেই। আমাদের দেশের গরু মায়ের মতো। আর বিদেশি গরু আন্টির মতো।” এর জেরেই এমন ঘটনা ঘটছে বলে দাবি করেন তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধান।