Date : 2019-11-19

পচন ধরেনি একটুও, বার্গার ফ্রেঞ্চ ফ্রাইয়ের বয়স ১০ বছর….

ওয়েব ডেস্ক: ম্যাগ ডোনাল্ডস থেকে চিজ বার্গার কেনা হয়েছিল, সেই চিজ বার্গারের সঙ্গে সেলফি তোলার জন্য ভিড় পড়ে গেল! কিন্তু কেন? বার্গারটি মামুলি নয়। পুরো ১০ বছরের পুরনো। ভাবছেন পচা বার্গারের! কি না অবস্থা তার! না একেবারেই অবিকৃত অবস্থায় রয়েছে বার্গারটি। শুধু বার্গার নয়, ১০ বছরের পুরনো ফ্রেঞ্চ ফ্রাই দেখলেও মনে হবে একটুও পচন ধরেনি তাতে। ১০ বছরের বাসি বার্গার দেখতে লাখে লাখে মানুষ ঢুকছেন ওয়েবসাইটে। সেখানেই চলছে লাইভ স্ট্রিম। ২০০৯ সালে আইসল্যান্ডে ম্যাকডোনাল্ডস-এর সব রেস্তোরাঁ বন্ধ হয়ে যায়। আর তখনই এই বার্গার কিনেছিলেন জোর্টার সামারসন। কিন্তু খাননি। রেখে দিয়েছিলেন এক কৌতূহল থেকে। তার পরে দিনের পর দিন গিয়ে চলতি সপ্তাহে ১০ বছর পূর্ণ হল সেই বার্গারের বয়স।

জোর্টার সামারসন সংবাদসংস্থাকে জানিয়েছেন, ম্যাকডোনাল্ডস প্রচার করে তাদের খাবারে কখনও পচন ধরে না। সেই দাবি কতটা সত্য তা পরীক্ষা করতেই না খেয়ে দেশে যে দিন প্রিয় রেস্তোরাঁ বন্ধ হয়ে যায় সে দিনে কেনা বার্গার রেখে দেন। বাকিটা ইতিহাস। জোর্টার মারসন তখন থেকে থাকতেন দক্ষিণ আইসল্যাণ্ডের একটি হোস্টেলে। সেখানে ম্যাকডোনাল্ডস থেকে কেনা বার্গারটি রেখে দেন একটি সেলফে। ১০ বছর ধরে সেটি সম্পূর্ণ অবিকৃত অবস্থায় রয়েছে। আয়ারল্যাণ্ডের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষের গন্তব্যস্থল এখন হোস্টল শুধুমাত্র ওই বার্গার আর ফ্রোঞ্চ ফ্রাই দেখার জন্য। এছাড়াও হোস্টেলের ওয়েবসাইটে বার্গারের লাইভ স্ট্রিম দেখেন দিনে গড়ে ৪ লাখ মানুষ। জোর্টার সামারসনের দাবি, খাবারের কাগজের মোড়ক দেখে বোঝা যায় বয়স হয়েছে কিন্তু বার্গারটি যেন কালকেই কেনা। কিভাবে এই বার্গার এত বছর ধরে অবিকৃত রয়েছে তার গল্প একটু আলাদা।

ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড পাকিস্তানের তেজগাম এক্সপ্রেসে, মৃত ৬৫

জোর্টার প্রথমে বার্গাটি কিনে একটি মিল প্যাকেটে করে গ্যারাজে রেখে দেল বার্গাটি। সেখানে দীর্ঘ ৩ বছর অবিকৃত অবস্থায় ছিল বার্গারটি। এরপর সেটি সংরক্ষণের জন্য জোর্টার আইসল্যান্ড মিউজিয়ামে রাখার কথা বলেন। মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেন, দীর্ঘদিন ধরে বার্গার সংরক্ষণ করে রাখার মতো কোন ব্যবস্থা নেই তাদের। সেই বার্গার সংরক্ষণের জন্য যদিও কোন বিশেষ সংরক্ষণের প্রয়োজন নেই তা আগেই বুঝতে পেরেছিল জোর্টার। ম্যাগডোনাস কর্তৃপক্ষ অবশ্য জানিয়েছেন, সাধারণ আবহাওয়ায় থাকার মতোই খাদ্য প্রস্তুত করা হয়। তবে জলীয় বাষ্পোহীন স্থানে থাকলে খাবারে পচন ধরার সম্ভাবনা নেই তাদের।