Date : 2021-10-19

পুজোর মুখে সুখবর। খুলে গেল অভয়ারণ্য।

সঞ্জু সুর, রিপোর্টার : কথায় আছে বাঙালীর পায়ের তলায় সর্ষে। সবসময় শুধু ঘুরুঘুরু মন। সুযোগ পেলেই লোটাকম্বল নিয়ে বেড়িয়ে পড়তে ওস্তাদ তারা। সামনেই আসছে পুজোর ছুটি। তারপর শীতকালের ছুটি তো আছেই। পর্যটন প্রিয় বাঙালীদের জন্য বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর থেকেই খুলে দেওয়া হলো রাজ্যের সব অভয়ারণ্য ও জাতীয় পার্ক। তবে সুন্দরবন বায়োস্ফিয়ার রিজার্ভের ক্ষেত্রে ১ অক্টোবর থেকে পর্যটক রা যেতে পারবেন। এমনিতে প্রতি বছর ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জঙ্গলে প্রবেশাধিকার বন্ধ থাকে। কিন্তু কোভিডের তৃতীয় ঢেউ এর আশঙ্কায় এবার জঙ্গল সাফারি করা যাবে কি না, বন দফতরের বিজ্ঞপ্তিতে সেই আশঙ্কা দুর হলো।

বৃহস্পতিবার রাজ্য বন দফতরের পক্ষ থেকে বিজ্ঞপ্তি জারি করে একথা জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার থেকে যেসব জাতীয় উদ্যান, অভয়ারণ্য পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হলো সেখানে সাফারি করতে পারবেন পর্যটকরা। তবে মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ববিধি পালন ও স্যানিটাইজেশন সহ সমস্ত কোভিড বিধি মেনে চলতে হবে। বিভিন্ন পার্কে বা জাতীয় উদ্যানে বনদপ্তরের যেসব কর্মীরা রয়েছেন তারাই এই বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

বনদফতরের কর্মিদের সম্পূর্ণ টিকা করণের পাশাপাশি এটাও বলে দেওয়া হয়েছে যে প্রয়োজনে স্থানীয়ভাবে নির্দিষ্ট কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করতে পারবেন ওয়াইল্ডলাইফ ওয়ার্ডেন বা জেলা বন আধিকারিকরা।
বনদফতরের এই সিদ্ধান্তে খুশি ট্যুর অপারেটর বিপ্রনাথ মজুমদার। ‘অফবিট ইউক‌এন্ড’-র পক্ষে বিপ্রনাথ বাবু জানালেন, ‘রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্ত তাদের জন্য একরাশ আসার আলো।’ কারন, তার মতে, গত প্রায় দেড় বছর ধরে কোভিডের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে ট্যুরিজিম সেক্টর। বিপ্রনাথ বাবুর মতে, ‘এমনিতেই মানুষ অনেক সচেতন হয়ে গিয়েছে। তার সঙ্গে তারাও এটা নিশ্চিত করেই ট্যুর অপারেট করছেন যারা ঘুরতে যাচ্ছেন তাদের টিকা করণের বিষয় টি যেন সম্পূর্ণ হয়ে থাকে।” পুজোর মরসুম বা তার পরে শীতের মরসুমে ডুয়ার্সে জঙ্গল সাফারির জন্য ভ্রমণপ্রিয় বাঙালির প্যাকেজিং শুরু হলো বলে।