Date : 2021-10-22

ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ নিলেই অঞ্জলি থেকে সিঁদুর খেলায় ছাড় পাবেন দর্শনার্থী

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার : শারদীয় উৎসবের জন্য অপেক্ষায় থাকে রাজ্যবাসী । সুখ দুঃখ ব্যথা বেদনা ভুলে মানুষ উৎসবে মেতে ওঠেন । মহালয়ার দিন থেকেই শহরের নামী পুজোর উদ্বোধন হয়ে গিয়েছে। যদিও এবছর মণ্ডপে দর্শক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। তা সত্ত্বেও আনন্দে মেতে উঠতে তো বাধা নেই। তবে বঙ্গবাসী ভরপুর পুজোর আমেজে ডুবে যাওয়ার আগেই ফের আরেকদফা নির্দেশিকা জারি করল কলকাতা হাইকোর্ট ।

সিঁদুর খেলা , অঞ্জলী – আরতি সহ সমস্ত উপাচার করতে পারবে পূজা কমিটি গুলি।
বড় প্যান্ডেলের ক্ষেত্রে একসঙ্গে ৪৫ জন এবং সর্বাধিক ৬০ জন আর ছোট প্যান্ডেলের ক্ষেত্রে একসঙ্গে ১০ জন এবং সর্বাধিক ১৫ জন উপাচার গুলিতে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।
নামের তালিকা আগে থেকে প্রস্তুত করতে হবে।

সবার টিকার দুটি ডোজ থাকতে হবে, এবং সবাইকে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।
নিয়ম মানা না হলে পুলিশ পূজার অনুমতি বাতিল করতে পারবে।

এ বছরও করোনা আবহে আয়োজিত হচ্ছে দুর্গাপুজো। তাই গত বছরের মতো নিয়ম মেনে তবেই উৎসব পালন হবে। এই মর্মে আগেই হাইকোর্ট রায়ে স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দলের ডিভিশন বেঞ্চ।

মণ্ডপে দর্শক প্রবেশ নিষিদ্ধ। শুধুমাত্র পুজোর আয়োজকরাই মণ্ডপে প্রবেশ করতে পারবেন। বড় মণ্ডপে ৪৫ জন এবং ছোটগুলিতে সর্বাধিক ১৫ জন একসঙ্গে থাকতে পারবেন। এই পরিস্থিতিতে আরও একদফা নয়া নির্দেশিকা জারি করল হাই কোর্ট। জনসাধারণের স্বাস্থ্যের দিক নজরে রেখেই এই নির্দেশিকা।

কিন্তু দুর্গা পুজো নিয়ে রাজ্য সরকারের বিজ্ঞপ্তি ঘিরে ফের কলকাতা হাইকোর্টের শরণাপন্ন হন মামলাকারী তাদের দাবি দুর্গাপূজা সম্পর্কিত কলকাতা হাইকোর্টের রায় তা অবমাননা করেছেন রাজ্য সরকার সন্ধিপুজো থেকে অঞ্জলি এবং সিঁদুর খেলায় বিধি-নিষেধ প্রত্যাহার করেছে রাজ্য।
বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের রাজ্যের এডভোকেট জেনারেল সৌমেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় জানান, কলকাতা হাইকোর্টের রায় কোন ভাবেই অবমাননা করেনি রাজ্য সরকার। কারণ ২০২০ সালে রাজ্য সরকারের নির্দেশিকা জারি করেছিল সেই নির্দেশিকাতে বলা আছে অঞ্জলি থেকে সন্ধিপুজো এবং সিঁদুর খেলার ক্ষেত্রে করোনা বিধিনিষেধ মানতে হবে। যারা এই বিধি-নিষেধ মানবেন না পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।