Date : 2022-05-25

সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের উপর নজর রাখলেই চলবে না, কিছু সন্ত্রাসে অন্য দেশেরও মদত থাকেঃ ভারত

রিমা দত্ত, নিউজ ডেস্ক : ২৬/১১ মুম্বাই হামলায় অপরাধীদের আশ্রয় দিয়েছিল পাকিস্তান। তাদের আপ্যায়ণের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। রাষ্ট্রপুঞ্জে এমনই কথা বলল,ভারত। ভারতের তরফে আরও বলা হয়, সন্ত্রাসের মোকাবিলা করতে হলে শুধু সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের উপর নজর রাখলেই চলবে না। কিছু কিছু সন্ত্রাসে অন্য দেশেরও মদত থাকে। সে দিকেও নজর দেওয়া উচিত রাষ্ট্রপুঞ্জের সংশ্লিষ্ট কমিটির।

মুম্বই বিস্ফোরণের নেপথ্য দাউদ ইব্রাহিমের দিকে আঙুল উঠেছিল। দাউদ যে পাকিস্তানেই রয়েছে তা আগেই স্বীকার করেছে পাক সরকার। ২০২০ সালের অগস্টে পাক সরকার যখন পাকিস্তানের মাটিতে বেড়ে ওঠা ৮৮টি সন্ত্রাস গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করে, তখন তার মধ্যে দাউদ ছিল অন্যতম। বিশ্ব সন্ত্রাস দমন পরিষদ আয়োজিত রাষ্ট্রপুঞ্জের আন্তর্জাতিক আলোচনাসভায় যোগ দিয়েছিলেন তিনি। ত্রিমূর্তি বলেন, ‘‘আমরা দেখেছি ১৯৯৩ সালের মুম্বই বিস্ফোরণের অপরাধীদের অন্য দেশে শুধু আশ্রয়ই দেওয়া হয়নি, তাদের যত্ন-আত্তি করে রাজার হালে রাখা হয়েছে।’’ পাকিস্তানের নাম না করেই ত্রিমূর্তি জানান, রাষ্ট্রপুঞ্জের উচিত এই ধরনের বিষয় বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দেখা। কারণ সন্ত্রাসের মোকাবিলা করতে হলে শুধু সন্ত্রাস ছড়ানো সংগঠনগুলির উপরই নজর রাখলে চলবে না। তাদের মদতদাতা রাষ্ট্রের ভূমিকাও চিহ্নিত করতে হবে।