Date : 2022-10-05

নির্দল প্রার্থীকে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে না দেওয়ায় রাজ্য সরকার ও নির্বাচন কমিশনকে তিরস্কার হাইকোর্টের

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার:-হতে পারে রাজ্য সরকার ও রাজ্য নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা ভিন্ন,কিন্তু কোন ব্যক্তি গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চাইলে তাঁকে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে না দেওয়া গণতন্ত্রের পক্ষে এটা দুর্ভাগ্যজনক।রাজ্য সরকার তার দায় এড়িয়ে যেতে পারেন না বলে মন্তব্য বিচারপতি রবি কিষান কাপুরের। জলপাইগুড়ি পৌর নির্বাচনে নির্দল প্রাথীকে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে না দেওয়ায় আদালতের তিরস্কার রাজ্য সরকার ও নির্বাচন কমিশনকে।
জলপাইগুড়ির নির্দল প্রার্থীকে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে বাঁধা দেওয়ায় এস ডিওকে সশরীরে হাজিরার নির্দেশে সোমবার আদালতে উপস্থিত হন তিনি।
মামলার শুনানিতে বিচারপতি রবি কিষান কাপুর এসডিও কাছে জানতে চান আদালতের নির্দেশে কেন মনোনয়ন পত্র জমা দিতে পারলেন না।আপনি কি আদালতে নির্দেশ পেয়ে ছিলেন এসডিও কে প্রশ্ন বিচারপতির।তিনি জানান আদালতের নির্দেশ পাওয়ার পর বিষয়টি পাঁচজন রিটার্নিং অফিসার কে জানিয়েছি। আমিও সেখানে উপস্থিত ছিলাম।কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তিনি মনোনয়ন পত্র জমা দিতে আসেননি।
আদালতের প্রশ্নের উত্তরে এসডিও জানান মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটা সিসিটিভির মাধ্যমে রেকডিং করা হয়েছে।
রাজ্যের পক্ষের আইনজীবী অনির্বান বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেন নির্দিষ্ট সময়ের আগে মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার আগে ৫০মিটার দূরে আবেদনকারীকে দেখা গিয়েছে।তিনি সে সময় সাংবাদিকদের প্রতিক্রিয়া দিচ্ছিলেন।
বিচারপতি রবি কিষান কাপুর আবেদনকারীর আইনজীবী র কাছে জানতে চান এবিষয় তিনি কেন নির্বাচন কমিশনকে অবগত করেননি।
আদালতের নির্দেশ কেন নির্দল প্রার্থী মলয় বন্দ্যোপাধ্যায় কেন আদালতের নির্দেশ শ্বাতেও কেন মনোনয়ন পত্র জমা দিতে পারলেন না সে বিষয়ে রাজ্য সরকারকে হলফনামায় জানাতে হবে ।মামলার পরবর্তী শুনানি ১লা মার্চ।