Date : 2022-05-29

গ্রীষ্মকালীন সবজি পটল অনেকেরই অপছন্দের তালিকায় থাকলেও পুষ্টিগুণ জানলে অবাক হতে হবে

সঞ্জনা লাহিড়ী, সাংবাদিক ঃ গ্রীষ্মকালীন সবজি পটল অনেকেরই অপছন্দের তালিকায় রয়েছে। তবে এই সাধারণ সবজির যা পুষ্টিগুণ তা জানলে অবাক হতে হবে। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে শর্করা, ভিটামিন এ ও সি। এছাড়া রয়েছে স্বল্প পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম, তামা, পটাসিয়াম, গন্ধক ও ক্লোরিনও। তাজা পটল হজমশক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। পাশাপাশি হার্টের শক্তি বৃদ্ধি, পিত্তজ্বর, কৃমিনাশ এবং শরীর ঠান্ডা রাখতেও সাহায্য করে। কেন এই গরমের সময় এই সবজি পাতে রাখা অত্যন্ত জরুরি তা দেখে নেব এক নজরে।
১.পটলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার যা খাবার হজমে সাহায্য করে। এছাড়াও এটি গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল সমস্যা সমাধানে এবং লিভারের সঙ্গে সম্পর্কিত সমস্যা সমাধানেও সাহায্য করে।
২. বিশেষজ্ঞদের দাবি পটলের গোলাকার বীজগুলো কোলেস্টেরল ও ব্লাড সুগারের মাত্রা প্রাকৃতিক ভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।
৩. পটলে থাকে ভিটামিন এ ও সি। এছাড়াও থাকে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা ত্বকের জন্য অত্যন্ত উপকারী। ফ্রি র‍্যাডিকেলের বিস্তার রোধ করে বয়সের ছাপ দূরে রাখতে সাহায্য করে।
৪. পটলে রয়েছে ভিটামিন এ, ভিটামিন বি ১, ভিটামিন বি ২, ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা সমাধানেও এই সবজির জুড়ি মেলা ভার।
৫. পটলে ক্যালোরির পরিমাণ কম থাকে তাই ওজন কমানোর জন্য নিশ্চিন্তে পটলের তরকারি খাওয়া যেতে পারে। এটি পেট ভরা রাখতে ও ক্ষুধা কমাতে সাহায্য করে।
৬. আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায় ঠান্ডা, জ্বর ও গলা ব্যথা কমাতে ওষুধ হিসেবে ব্যবহার হয় এই গ্রীষ্মকালীন সবজি।
৭. পটল রক্তকে পরিশোধিত করতে সাহায্য করে, এর ফলে ত্বকের যত্নেও এই সবুজ সবজিটি বেশ ভাল কাজ দেয়।
৮. এছাড়া পটলের বীজ কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়ে সাহায্য করে বলে মনে করা হয়।