Date : 2022-10-02

ব্রাত্য বিদেশি! – পয়লাতে বাঙালি খাবারেই মজল বাংলা

সায়ন্তিকা ব্যানার্জি, সাংবাদিক: পয়লা বৈশাখ মানেই চেনা ব্যস্ততার ভিড় ছেড়ে একটা নিখাদ ছুটির দিন। আর ছুটির দিন মানেই খাওয়া তো আবশ্যিক। এই দিনটায় সকলেই খোঁজে একেবারে বাঙালি খাবার দাবার। এই দিনে ব্রাত্যই থাকে বিরিয়ানি কিংবা ফ্রায়েড রাইস। চিলি চিকেনের জায়গা নেয় ধনেপাতা মুরগি আর প্রন ইন অয়েস্টার সসকে সরিয়ে হটকেক হয় ডাব চিংড়ি। এবারেও সারা শহর জুড়ে বিভিন্ন রেস্তোরাঁয় উঠে এল সেই ছবিই।

সকাল থেকেই চোখে পড়ল বিভিন্ন রেস্তোরাঁর সামনে উপচে পড়া ভিড়। আর তার সবক’টাই কিন্তু বাঙালি রেস্তোরাঁ। প্রবল গরমকে উপেক্ষা করেই ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত

ওই যে পয়লা বৈশাখ মানেই কব্জি ডুবিয়ে খাবার দিন। তাই বিভিন্ন রেস্তোরাঁয় রমরমিয়ে বিক্রি হল বাঙালি থালি। যাতে ছিল ভাত লুচি পোলাও ডাল শুক্তো ছানার কালিয়া পাবদার ঝাল ডাব চিংড়ি মাটন কষা চিকেন ডাকবাংলো ইত্যাদির মত রকমারি পদ। আর মিষ্টিমুখ? হ্যাঁ সে তো বাঙালির জন্য আবশ্যিক। তাই সেখানেও একাধিক লোভনীয় পদের আয়োজন করেছিল রেস্তোরাঁ গুলি।

এবার বহু রেস্তোরাঁই নজর দিয়েছিল হারিয়ে যাওয়া বাংলার রান্নাতে। যেমন সজনে পাতায় চিংড়ি, চিকেনের মুইঠ্যা, কচুপাতায় ভাপা মুরগি, নিরামিষ মাংসের মত হরেক পদের আয়োজন করেছিল বহু রেস্তোরাঁই।

এছাড়াও এই প্রবল গরমে গলা ভেজাতে ছিল আমপান্না দইয়ের ঘোল গন্ধরাজ ঘোলের মত হরেক সরবত। পরিবারের সঙ্গে কিংবা প্রিয় মানুষের সঙ্গে খাবারে মজতে দেখা গেল অনেককেই।করোনার ভয় কাটিয়ে সব মানুষই ফিরছেন চেনা ছন্দে।সেই ছবিই দেখা গেল পয়লা বৈশাখের দিন জুড়ে।