Date : 2022-05-29

ভাতের ফ্যান ঝড়িয়ে দেন? জানেন কি থাকে এই ফ্যানে?

রিমা দত্ত, নিউজ ডেস্কঃ ভাত তৈরির জন্য মাত্র দুটি উপাদানেই তৈরি হয় ভাত। চাল আর জল। ভাত রান্না পর আপনি নিশ্চয়ই ভাতের ফ্যান ঝরিয়ে নেন। এবার থেকে আর তা করবেন না। ভাত রান্না পর ফ্যানটা রেখে দেবেন। কারণ এই ভাতের থেকে আপনাকে যে পরিমাণ পুষ্টি জোগাবে, তা আপনি ভাবতেও পারবেন না। পুষ্টিতে ভরপুর ভাতের জল। অনেকেই হয়তো জানেন যে চাল ধোয়া জল দিয়ে মুখ পরিষ্কার করলে ত্বক সুন্দর হয়। কিন্তু ভাতের জল বা ফ্যানকে যদি পচিয়ে পান করেন, তাহলে শরীর কতটা স্বাস্থ্যবান হবে জানেন?

ডিহাইড্রেশনের পাশাপাশি ডায়রিয়ার সমস্যা থেকেও আরাম দেয় ভাতের ফ্যান। হজম প্রক্রিয়ায় দারুণ কাজ করে ফ্যান। বাচ্চাদের কোনও কারণে খাদ্যবিষক্রিয়া হলে, পেটের সমস্যা দেখা দিলে, এই ফ্যান করাতে পারেন। অন্ত্রের স্বাস্থ্যকে ভাল রাখার জন্য মিনারেল ও প্রোবায়োটিক ভীষণ ভাবে জরুরি। আর এগুলো ভাতের ফ্যানের মধ্যে সহজেই পাওয়া যায়। এই ভাতের জল বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন নামে পরিচিত। যেমন আমরা বাঙালিরা একে ফ্যান বলি, তেমনই অনেকে এতে কাঞ্জি, মুনজি এবং মান্ড বলে। এই ভাতের ফ্যানের মধ্যে অ্যামাইনো অ্যাসিড, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং মিনারেল রয়েছে যা শরীরে ইলেক্ট্রোলাইটের স্তরের ভারসাম্য বজায় রাখে।

আপনি যদি এই ভাতের ফ্যানকে টোনার হিসাবে ব্যবহার করেন এটি আপনার ত্বককে আরও সুন্দর করে তুলবে। এতে ভিটামিন এ, সি এবং কে রয়েছে যা ত্বককে মসৃণ করে তুলতে সাহায্য করে। এর পাশাপাশি যদি হেয়ার মাস্ক তৈরিতে এই ভাতের ফ্যান মেশান, চুলের ফ্রিজিনেস নিমেষে দূর হয়ে যাবে।