Date : 2022-10-03

দুই বছর পর ফের বানিজ্য সম্মেলন। গুরুত্ব শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থান

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক: কোভিডের কারণে মাঝের দুই বছর বাদ দিয়ে ফের বিশ্ববঙ্গ বানিজ্য সম্মেলন। বুধ ও বৃহস্পতিবার রাজারহাটের বিশ্ববাংলা কনভেনশন সেন্টারে দুই দিনের বানিজ্য সম্মেলনে অংশ নেবেন দেশ বিদেশের বহু শিল্পপতি। মোট ১৪ টি দেশের প্রতিনিধিত্ব থাকছে এবারের বিশ্ববঙ্গ বানিজ্য সম্মেলনে। ব্রিটেন, আমেরিকা, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, জার্মানি, বাংলাদেশ, ভুটান, নর‌ওয়ে, ফিনল্যান্ড, জাপান, অষ্ট্রেলিয়ার শিল্পপতিরা এই সন্মেলনে উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গিয়েছে।

এরমধ্যে সবচেয়ে বড় প্রতিনিধিত্ব থাকছে সম্ভবত ব্রিটেনের। এখনও পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী ব্রিটেন থেকে প্রায় ৪৯ জন শিল্পপতিদের একটি প্রতিনিধি দল যোগ দেবেন দুই দিনের শিল্প সন্মেলনে। তাজপুর সমুদ্র বন্দর তৈরিতে ইচ্ছুক আদানি গোষ্ঠির প্রধান গৌতম আদানি বা জিন্দল গোষ্ঠির প্রধান সজ্জন জিন্দল উপস্থিত থাকবেন। গৌতম আদানি আসতে না পারলে তাঁর পুত্র করণ আদানি উপস্থিত থাকবেন। উপস্থিত থাকার কথা মুকেশ আম্বানির। এছাড়াও ওয়াই কে মোদি, আর বি মিত্তল, নিরঞ্জন হিরানন্দানি, জ্যোৎস্না সুরি, ওয়াই সি দেবেশ্বর, হর্ষবর্ধন নেওটিয়া, সঞ্জীব গোয়েঙ্কা, রুদ্র চ্যাটার্জি, পুনীত ডালমিয়া, পূর্ণেন্দু চ্যাটার্জি সহ একঝাঁক শিল্পপতি উপস্থিত থাকবেন। এবারের বানিজ্য সম্মেলনে যে সেক্টরগুলির উপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে তারমধ্যে অন্যতম কৃষি, কৃষি বিপনন, মৎস, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প, বস্ত্র শিল্প, সার্ভিস সেক্টর প্রভৃতি ক্ষেত্রে। এছাড়াও পরিবহন, বিদ্যুৎ ও নগরোন্নয়ন এর ক্ষেত্রে পরিকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য বিনিয়োগ বাড়ানোর দিকেও নজর দেওয়া হবে। কয়েকদিন আগে ‘বিশ্ব বাংলা মেলা প্রাঙ্গণ’-র উদ্বোধন মঞ্চে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন “কোভিড পরবর্তী সময়ে আমরাই (পশ্চিমবঙ্গ) প্রথম এই ধরনের বানিজ্য সম্মেলন করছি। হয়তো একটু রিস্ক নিচ্ছি। কারণ নো রিস্ক, নো গেইন।” তিনি আরও বলেছিলেন, “এখন আমার লক্ষ্য রাজ্যে শিল্পায়ন করা। বেকার যুবদের জন্য কাজের সৃষ্টি করা।” রাজ্যের শিল্প দফতর মনে করছে যেভাবে বিভিন্ন প্রথম সারির শিল্পগোষ্ঠী বিজিবিএস এ অংশ নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে তাতে এবারের বানিজ্য সম্মেলন যথেষ্ট সফল হবে।