Date : 2022-10-02

ওপেনবুক সিস্টেমে মত নেই। সমস্ত বিভাগের মত, আগের নিয়মেই হোক পরীক্ষা

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : বই দেখে নয়, অফলাইনে আগের নিয়মেই হবে যাদবপুরের ইঞ্জিনিয়ারিংএর সব পরীক্ষা। করোনার সংক্রমণ নিম্নমুখী হতেই ছন্দে ফিরতে শুরু করেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। যাদবপুরের ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের পড়ুয়াদের দাবি ছিল অফলাইনে নয় অনলাইনে হোক পরীক্ষা।করোনা কালে সমস্ত পরীক্ষা হয়েছে অনলাইনে। বাড়িতে বসে বই খুলে পরীক্ষা দিয়েছেন পড়ুয়ারা । কিন্তু এখন পাল্টেছে পরিস্থিতি। আগের মতোই সবকিছু স্বাভাবিক। স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে অফলাইনে ক্লাস । সব পরীক্ষায় নেওয়া হচ্ছে অফলাইনে। এমত অবস্থায় যাদবপুরের ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়াদের অনলাইনে পরীক্ষার দাবি মেনে নেয়নি কর্তৃপক্ষ। দাবি পুরোনে বিক্ষোভ দেখায় পড়ুয়ারা।

পড়ুয়াদের ক্ষোভ সামলাতে বই দেখে পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তাব দেন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিন । গত বুধবার হঠাৎ ইঞ্জিনিয়ারিং ফ্যাকাল্টির ১৫ টি বিভাগকে নিয়ে বৈঠকে ডিন এই প্রস্তাব দেন । পাশাপাশি প্রস্তাব রাখা হয় ৭০ নম্বরের পরীক্ষা এবং সেই পরীক্ষা ৪ ঘন্টা ধরে নেওয়ার জন্য।ইঞ্জিনিয়ারিং ফ্যাকাল্টির ১৫ টি বিভাগের কাছে এ নিয়ে মতামত চাওয়া হলে সমস্ত বিভাগ জানিয়ে দিয়েছে, আগের নিয়মেই পরীক্ষা নেওয়া হবে। পড়ুয়াদের ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখেই পুরনো নিয়মই পরীক্ষা চান অধ্যাপকেরা। তাদের মতে, হঠাৎ করে এই নিয়ম চালু হলে ছাত্রছাত্রীদের ক্ষতি হবে। উল্লেখ্য, আগেই ‘এক্সাম বোর্ড’ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পুরনো নিয়মেই অফলাইনে পরীক্ষা হবে। সেই নিয়মই বহাল থাকল।

করোনার জন্য দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল বিশ্ববিদ্যালয়। অনলাইনে ক্লাস হলেও নেটওয়ার্কের সমস্যায় অনেকে ঠিকমত ক্লাস করতে পারেনি। তাই পড়ুয়াদের পক্ষ থেকে অনলাইন পরীক্ষার দাবি জানানও হয়। দাবি পুরোনে আন্দোলনে নামে পড়ুয়ারা। বিক্ষোভ সামাল দিতে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিনের পক্ষ থেকে ওপেনবুক সিস্টেমের প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু তাতে সায় নেই ইঞ্জিনিয়ারিং ফ্যাকাল্টির ১৫ টি বিভাগেরই। এই সিদ্ধান্তে খুশি নয় পড়ুয়াদের একাংশ।