Date : 2022-05-27

কয়লার জোগান কম, বাতিল ৬৭০টি প্যাসেঞ্জার ট্রেন

মাম্পি রায়, নিউজ ডেস্ক : কয়লার জোগান কম, তাই বাতিল করা হল ৬৭০টি প্যাসেঞ্জার ট্রেন। বিদ্যুৎ সংকটও দেখা হয়েছে। এর ফলে দেশে গত দুসপ্তাহে প্রতিদিন ১৬টি মেল ও প্যাসেঞ্জার ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। ২৪মে পর্যন্ত ৬৭০টি প্যাসেঞ্জার ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। ওই ট্রেনগুলির মধ্যে ৫০০টি দুরপাল্লার ট্রেন এবং এক্সপ্রেস ট্রেন।
রেলের এক আধিকারিকের দেওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৬ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে রেলে প্রত্যেকদিন কয়লা পরিবহণের জন্যে ২৬৯টি মালগাড়ি চালানো হত। যেখানে ২০১৭-১৮ এবং ২০১৮ এবং ২০১৯ সালে এই সংখ্যা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। গত বছর প্রত্যেকদিন এমন ৩৪৭ টি মালগাড়ি চালানো হয়। কিন্তু বুধবার পর্যন্ত এই সংখ্যা প্রত্যেকদিন ৪০০ থেকে ৪০৫টি পর্যন্ত মালগাড়ি চালানো হয়েছে। রেল আধিকারিকরা জানাচ্ছেন, এই বছর ভয়ঙ্কর ভাবে কয়লার চাহিদা বেড়ে গিয়েছে। আর সেই চাহিদা পূরণ করতে পুরোদমে কাজ করছে রেলমন্ত্রক।
দিল্লির বিদ্যুৎমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন জানিয়েছেন, আর মাত্র একদিনের মতো কয়লা মজুত রয়েছে। তারপরে আর বিদ্যুৎ উদপাদন করা সম্ভব হবে না দিল্লিতে। এই পরিস্থিতিতে ভারতীয় রেল জানিয়েছে, কয়লা পরিবহণের জন্য বেশ কিছু প্যাসেঞ্জার ট্রেন বাতিল করা হচ্ছে। কতদিন বাতিল থাকবে ট্রেন, সেই সম্পর্কেও কোনও তথ্য দিতে পারছে না ভারতীয় রেল । তীব্র গরমে দেশজুড়ে এমনিই বাড়ছে ভোগান্তি। এই গরমের মধ্যে ট্রেন বাতিলের জেরে আরও দুর্ভোগ বাড়বে ট্রেনযাত্রীদের।
দিল্লির মতোই দেশের নানা প্রান্তে কয়লা ফুরিয়ে আসছে। সেই কারণেই রেলের তরফে জানান হয়েছে, যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কয়লা পাঠানো হবে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলিতে। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ৪২টি প্যাসেঞ্জার ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। পণ্যবাহী ট্রেনগুলির গতি বাড়াতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান হয়েছে ইন্ডিয়ান রেলওয়েজের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর গৌরব কৃষ্ণ বনসল। তিনি আরও জানান, ট্রেন কতদিন বন্ধ থাকবে, তা এখনই বলা যাচ্ছে না। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ট্রেন পরিষেবা আগের মতো করা হবে বলে জানান তিনি।