Date : 2022-11-27

করোনার ভয় কাটিয়ে ছন্দে ফিরছে কুমোরটুলি – মা রওনা দিলেন বিদেশে

সায়ন্তিকা ব্যানার্জি, সাংবাদিকঃ করোনার চোখরাঙানি পেরিয়ে অবশেষে ছন্দে ফিরেছে জনজীবন। আর সেই পথ ধরেই ফের চেনা ব্যস্ততা ফিরে এসেছে কুমোরটুলিতেও। ব্যস্ততা ফিরেছে মৃৎশিল্পীদেরও। আসছে ঠাকুরের বায়নাও। ইতিমধ্যেই মা পাড়ি দিয়েছেন বিদেশেও।

কুমোরটুলির শিল্পীরা জানাচ্ছেন বেশ অনেক বছর পর এই বছর পুজোর অনেক আগেই প্রতিমার বায়না শুরু হয়েছে। প্রচুর অর্ডার এসেছে বাড়ির পুজোগুলির। আসছে ক্লাবের পুজোর বরাতও। শুধু তাই নয় বিদেশের প্রতিমার প্রচুর অর্ডার এসেছে। ইতিমধ্যেই অনেক ঠাকুর পাড়ি দিয়েছে বিদেশের উদ্দেশ্যে।

প্রতিবছর রথযাত্রার দিন থেকে শুরু হয় মায়ের প্রতিমার বায়না করা আর সেদিন থেকেই শুরু হয়ে যায় প্রতিমায় মাটি লেপনের কাজ। কিন্তু এবছর আগেভাগেই এই কাজ শুরু করে দিয়েছেন মৃৎশিল্পীরা।

সবকিছু ঠিক থাকলে এবছর করোনামুক্ত পুজো হবে। সেই আগের মত জমজমাট ভাবে ধুমধাম করেই পুজো হওয়া নিয়ে আশাবাদী কুমোরটুলি। এরই সঙ্গে এবার পুজো নিয়ে যোগ হয়েছে বাড়তি উন্মাদনা। ইউনেস্কো বাংলার পুজোকে হেরিটেজ ঘোষণা করেছে। আর এই কারণেই এবার বাড়তি উন্মাদনা থাকবে পুজোকে ঘিরে। আর তাই আগেভাগেই প্রতিমা তৈরির কাজ শুরু করেছেন তারা।

মৃৎশিল্পীরা জানাচ্ছেন প্রায় প্রতি রবিবার ভিড় চোখে পড়ছিল কুমোরটুলিতে। একদিকে যেমন বাড়ির পুজোর বরাতের জন্য মানুষ আসছে আবার ক্লাবের পুজো, থিম পুজোর বরাতও আসছে। তাই সব মিলিয়ে স্বস্তির হাসি ঘোরাফেরা করছে কুমোরটুলি জুড়ে।