Date : 2022-10-03

২০২ টি স্টেন্ট পড়ে পড়ে নষ্ট! হাসপাতালে বেনিয়মের অভিযোগ

রিমিতা রায়, নিউজ ডেস্ক : মহামূল্য ২০২ টি স্টেন্ট কার্যত পড়ে পড়ে নষ্ট। সেইসব বাতিল হয়ে যাওয়া স্টেন্টের শংসাপত্র তৈরির জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে হৃদরোগ বিভাগের বিভাগীয় প্রধানকে। এমনকি অবাধ্যতা করলে কোচবিহারে বদলির হুমকি দেওয়া হচ্ছে। কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এই অভিযোগ উঠছে হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান তথা বিধায়ক নির্মল মাজির বিরুদ্ধে। কলকাতার প্রথম সারির সরকারি হাসপাতালগুলির মধ্যে অন্যতম কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ। এবার সেই হাসপাতালেই স্টেন্ট কেলেঙ্কারির অভিযোগ। এবার হাসপাতালের বিরুদ্ধে বেনিয়মের অভিযোগ তুললেন হৃদরোগ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ভবানী প্রসাদ চট্টোপাধ্যায়।

তাঁর অভিযোগ, বাতিল হয়ে যাওয়া ২০২ টি স্টেন্টের দায়িত্ব নিতে বলা হচ্ছে এমনকি নষ্ট হয়ে যাওয়া স্টেন্টের শংসাপত্র রাখতে হবে।এবিষয়ে নির্মল মাজি চিকিতসক ভবানী প্রসাদের উপর চাপ সৃষ্টি করছেন। রাজি না হলে কোচবিহারে বদলির হুমকিও দিয়েছেন নির্মল মাজি। ইকোপলার যন্ত্র নেই, তবুও ৪টি যন্ত্রের ফিজিক্যাল ফিটনেস সার্টিফিকেট দিতে বলা হচ্ছে। কার্ডিওলজি বিভাগে যক্ষ্মা, ডায়ারিয়া রোগীর ভর্তির সুপারিশ করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য দফতরের কেউ না হয়েও কীভাবে চিকিতসকদের পদত্যাগের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন নির্মল মাজি? প্রশ্ন তুললেন র্সাভিস ডক্টরস ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ডাক্তার সজল বিশ্বাস।এবিষয়ে হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডাক্তার রঘুনাথ মিশ্রের কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। অভিযোগ মানতে নারাজ হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান ডাক্তার নির্মল মাজি৤ উল্টে চিকিত্সক ভবানী প্রসাদের উপরেই দায় চাপালেন নির্মল মাজি ।তাঁর অভিযোগ, ডাঃ ভবানী প্রসাদ চট্টোপাধ্যায় নানা অজুহাতে তাঁর বিভাগে অনিয়মিত।

তাঁকে স্টেন্ট ব্যবহার সম্পর্কে অধ্যক্ষের মাধ্যমে অডিট করতে বলা হয়েছে। তিনি কোনও অডিট করতে পারেননি।বামপন্থী হওয়া সত্ত্বেও তাঁকে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পোস্টিং দেওয়া হয়েছে।এটাই প্রমাণ করে তৃণমূলের সরকার প্রতিহিংসাপরায়ণ নয়। স্টেন্ট নষ্ট।তার শংসাপত্র তৈরির জন্য জোর করা হচ্ছে।এই অভিযোগেই সরব চিকিত্সক মহলের একাংশ। কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের এই বিতর্কে চিকিত্সা পরিষেবার স্বচ্ছতা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন।