Date : 2022-12-09

অগ্নিপথ বিক্ষোভের আঁচ একাধিক রাজ্যে, সেকেন্দ্রাবাদে পুলিশের গুলিতে মৃত এক যুবক

মাম্পি রায়, নিউজ ডেস্ক ঃ অগ্নিপথ বিক্ষোভের আঁচে অগ্নিগর্ভ বিহার, উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা। পশ্চিমবঙ্গ, মধ্যপ্রদেশের পাশাপাশি দক্ষিণের রাজ্যগুলিতেও বিক্ষোভ শুরু চলে। সেকেন্দ্রাবাদে অগ্নিপথ নিয়ে চলে আন্দোলন। সেসময় পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হল বছর ১৯-এর এক প্রতিবাদীর। ঘটনায় ১৫ জনের বেশি বিক্ষোভকারী জখম হয়েছেন। অগ্নিপথ ইস্যুতে তেলেঙ্গানা স্টেশনে ব্যাপক আন্দোলন শুরু হয়। পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ বাঁধে বিক্ষোভকারীদের। পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথরবৃষ্টি শুরু করে বিক্ষোভকারীরা। লাঠি চালিয়েও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেনি পুলিশ। এরপর বাধ্য হয়ে ১৫ রাউন্ড গুলি চালায় পুলিশ। সেই গুলিতেই মৃত্যু হয় এক যুবকের। জখম হয়েছেন দুজন পুলিশ কনস্টেবল।

শুক্রবার সকাল থেকেই সেকেন্দ্রাবাদ স্টেশনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে বিক্ষোভকারীরা। ট্রেন আটকে চলে বিক্ষোভ। প্রায় তিন ঘণ্টা বন্ধ থাকে ট্রেন চলাচল। আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় তিনটি ট্রেনে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন করা হয় পুলিশবাহিনী। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে গুলি চালাতে বাধ্য হয় পুলিশ। সূত্রের খবর, ওই গুলিতেই মৃত্যু হয় এক বিক্ষোভকারীর। স্থানীয় সূত্রে খবর,  মৃত ওই যুবক দামোদর রাকেশ। তেলেঙ্গানার ওয়ারেঙ্গালের বাসিন্দা ছিলেন তিনি। সকাল থেকেই সেকেন্দ্রাবাদ স্টেশনে কেন্দ্রের প্রকল্পের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখান রাকেশ। তখনই পুলিশের গুলিতে জখম হন তিনি। তড়িঘড়ি তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

মঙ্গলবার প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং অগ্নিপথ প্রকল্পের ঘোষণা করেন। এরপরই দেশজুড়ে বিক্ষোভ শুরু হয়। বিহার, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, পঞ্জাব, উত্তরাখণ্ড, ঝাড়খণ্ডের মতো একাধিক রাজ্যে বিক্ষোভ দেখানো হয়।

শুক্রবার বেলা ৯টা নাগাদ সেকেন্দ্রাবাদে বিক্ষোভ শুরু করেন প্রায় সাড়ে তিনশো প্রতিবাদী। ইস্ট কোস্ট এক্সপ্রেস, রাজকোট এক্সপ্রেস, অজন্তা এক্সপ্রেসে আগুন লাগিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। বিক্ষোভের জেরে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন ট্রেনের যাত্রীরা। সেকেন্দ্রাবাদ স্টেশন দিয়ে যাতে ট্রেন না ঢোকে সেজন্য গতিপথ ঘুরিয়ে দেওয়া হয়। বাতিল করা হয় ৭১টি ট্রেন।   

অগ্নিপথ ইস্যুতে বিহারের বিক্ষোভ তৃতীয় দিনে পা দিল। উপ মুখ্যমন্ত্রী রেণুদেবীর অফিস ভাঙচুর করে বিক্ষোভকারীরা। এতে আখেরে সমাজের ক্ষতি হচ্ছে, বিক্ষোভকারীদের বোঝা উচিৎ, জানান রেণু দেবী।  

বিহারের সমস্তিপুরে জম্মু তাউয়ি এক্সপ্রেসের দুটি বগিতে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। ঘটনায় হতাহতের খবর নেই। অন্যদিকে লাখিসরাই জেলায় বিজেপি অফিসে ভাঙচুর চালানো হয়। নালন্দার ইসলামপুর স্টেশনে দাঁড়িয়ে থাকা ইসলামপুর- হাতিয়া এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। ৩টি এসি কোচ সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়ে গিয়েছে বলে খবর।