Date : 2022-06-27

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুঁয়ো তথ্য রুখতে কড়া পদক্ষেপ কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের

রুমঝুম সামন্ত, নিউজ ডেস্ক; বর্তমানে সোশ্যাল অ্যাকাউন্ট প্রত্যেকেই ব্যবহার করে থাকে। নিজের কোনও মন্তব্য পেশ করতে এমনকি সকল বিষয়ে আপডেট থাকতে সোশ্যাল মাধ্যম একটি উল্লেখ যোগ্য ভূমিকা পালন করে। সোশ্যাল মিডিয়া ইন্টারনেট মানুষের মধ্যে দূরত্ব কমিয়েছে অনেকটা। এক ক্লিকেই এখন গোটা বিশ্ব হাতের মুঠোয়।
দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিঘ্ন ঘটাতে মন্ত্রীসভার বৈঠকের নকল ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়ানোর অভিযোগে বেশ কিছু অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিল কেন্দ্র। ফেসবুক, টুইটার, টেলিগ্রামের বেশ কিছু অ্যাকাউন্ট ইতিমধ্যেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বেশ কিছু ইউটিউব চ্যানেলের বিরুদ্ধেও পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের তরফ থেকে একথা জানানো হয়েছে।
তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে,


বেশ কিছু টুইটার অ্যাকাউন্ট ও ইউটিউইব চ্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি দানা বাঁধে একটি ভুঁয়ো ভিডিও কেন্দ্র করে। মন্ত্রীসভার এক বৈঠকের এই ভিডিও বাইরে থেকে শব্দ বসিয়ে সাম্প্রদায়িক আশান্তি বাঁধানোর লক্ষ্যেই এই ভিডিও ছড়ানোর চেষ্টা হচ্ছিল বলে জানাযায়। অভিযোগ, সোখানে মহিলাদের বিরুদ্ধে অবমাননাকর ভিডিও আপলোড করা হচ্ছিল। ইতিমধ্যেই 73টি টুইটার অ্যাকাউন্ট উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। সরানো হয়েছে চারটি ইউটিউব ভিডিও পাশাপাশি ইনস্টাগ্রাম থেকে একটি গেম মুছে দেওয়া হয়েছে। যে সমস্ত চ্যানেল এবং অ্যাকাউন্ট থেকে এই প্রচার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করা হচ্ছে ফেসবুক ও টেলিগ্রামেও বেশ কিছু অ্যাকাউন্টের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফলকে কেন্দ্র করে গত বছরের জানুয়ারিতে ট্রাম্পের উগ্র সমর্থকেরা যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস ভবনে রক্তক্ষয়ী হামলা চালান। এ হামলায় উসকানির অভিযোগে তত্কালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে টুইটারে স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করা হয়। ট্রাম্পের ট্যুইটার নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে পারেন ইলন মাস্ক। ইলন মাস্ক আনুষ্ঠানিকভাবে টুইটারের মালিক হওয়ার পর প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মাইক্রো ব্লগিং সাইটের নিষেধাজ্ঞা তুলে দিতে পারে। তাহলে আবারও টুইটারে দেখা মিলতে পারে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। যদিও ইলন মাস্করে কথায়, ‘টুইটার এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যেখানে সবাই মত প্রকাশ করতে পারে’।