Date : 2022-06-26

ফের বেড়েছে গরমের ছুটি। স্কুল বন্ধ থাকায় সময়ে পরীক্ষা শেষ নিয়ে চিন্তায় শিক্ষকমহল।

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : প্রচন্ড গরম ও তীব্র দাবদাহের হাত থেকে পড়ুয়াদের স্বস্তি দিতে ফের বাড়ানো হয়েছে গরমের ছুটি। ১৫ জুনের পরিবর্তে ছুটি থাকবে ২৬ জুন পর্যন্ত। এরফলে প্রায় দুমাস স্কুল বন্ধ থাকবে। এতদিন বন্ধ থাকায় স্কুলের পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে হওয়া নিয়ে সমস্যা হবে বলে মত শিক্ষক শিক্ষিকাদের। পরীক্ষা পিছোলে সময়মতো সিলেবাস শেষ করার ক্ষেত্রেও সমস্যা হবে বলে মনে করছেন তাঁরা।

করোনার জন্য দীর্ঘ ২ বছর বন্ধ ছিল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। সংক্রমণ নিম্নমুখী হতেই ছন্দে ফিরতে শুরু করে স্কুল -কলেজ। প্রায় দু বছর পর অফলাইনে পরীক্ষাও শুরু হয়। তবে এবার পরীক্ষার পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে অতিরিক্ত গরমের ছুটি, এমনই মত শিক্ষকমহলের একাংশের। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফ থেকে ঘোষিত হয়েছে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় সামেটিভ পরীক্ষার সময়সূচি। এখন গরমের ছুটি বাড়ানোয় এই সূচি মেনে চলার ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দিয়েছে।

সামেটিভ পরীক্ষার সূচি হল-ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির প্রথম সামেটিভ ৭ মে র মধ্যে শেষ করার কথা ছিল। তবে গরমের ছুটি এগিয়ে আসায়
বেশির ভাগ স্কুলেই শেষ হয়নি পরীক্ষা।
ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির দ্বিতীয় সামেটিভ
২০ আগস্টের মধ্যে শেষ করতে হবে।
ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির তৃতীয় সামেটিভ হবে
২৫ নভেম্বর থেকে ৭ ডিসেম্বরের মধ্যে।
১৭নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে স্কুলগুলিকে ২০২৩ মাধ্যমিকের টেস্ট নিতে হবে।

ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির প্রথম পর্যায় ক্রমিক পরীক্ষা শেষ না হতেই তীব্র গরমে সময়মতো পড়ুয়াদের স্বস্তি দিতে এগিয়ে আনা হয় গরমের ছুটি।এই অবস্থায় হাতে গোনা কয়েকটি স্কুল পরীক্ষা নিতে পারলেও বেশিরভাগ স্কুলেই বাকি রয়েছে প্রথম পর্যায়ের পরীক্ষা। প্রচন্ড গরমের জন্য ফের বেড়েছে গরমের ছুটি। ১৫ জুনের পরিবর্তে ২৬ জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে স্কুল। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই এই সিদ্ধান্ত। তবে এই নির্দেশিকার ফলে কী ভাবে সময়ের মধ্যে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে তা নিয়ে চিন্তিত শিক্ষকমহল।

সরকারি স্কুলগুলিতে ১১ দিন ছুটি বাড়ানোর ফলে, প্রায় গোটা জুন মাসই রাজ্যের সরকারি এবং সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলগুলি বন্ধ থাকবে। তবে বেশিরভাগ বেসরকারি স্কুল কর্তৃপক্ষ অনলাইনে ক্লাসের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাই ১৬ জুন থেকে বেশির ভাগ বেসরকারি স্কুলেই শুরু হবে অনলাইনে ক্লাস। অনলাইন ক্লাসের বিষয়ে পড়ুয়াদের জানিয়েও দেওয়া হয়েছে। এতে পড়ুয়াদের পড়াশোনার ঘাটতি অনেকটাই মিটবে বলে মত বেসরকারি স্কুল কর্তৃপক্ষের।