Date : 2022-11-27

নিয়ম নতুন নয়। তবুও বিতর্কের মুখে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : ৩৫ শতাংশ নম্বর পেলেই কোনও পড়ুয়া একাদশে ভর্তির ক্ষেত্রে বিজ্ঞান ভিত্তিক ঐচ্ছিক বিষয় নিতে পারবে। সংসদের এই বিজ্ঞপ্তি ঘিরে বিতর্ক দানা বাঁধে। এ নিয়ম নতুন নয়। ২০০৬ সাল থেকে চলে আসছে এই নিয়ম। সাফ কথা উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতির।

৩রা জুন প্রকাশিত হয়েছে ২০২২এর মাধ্যমিকের ফল। এবছর পাশের হার ৮৬.৬০%। সেদিনই একাদশের ভর্তি প্রক্রিয়া নিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। কোনও পড়ুয়া মাধ্যমিকে বিজ্ঞান ভিত্তিক বিষয়ে ৩৫ শতাংশ নম্বর পেলেই ঐচ্ছিক বিষয় হিসেবে তা পড়া যাবে। তবে সংসদের এই বিজ্ঞপ্তি ঘিরে বিতর্ক দানা বাঁধে। সংসদ সভাপতির বক্তব্য এটা নতুন নয়। ২০০৬ সাল থেকে এই নিয়ম চলে আসছে। সংসদের নিয়ম অনুযায়ী সর্বনিম্ন নম্বর হিসেবে এটায় ধরা হয়। এটা নিয়ে অহেতুক বিতর্ক সৃষ্টি করা হচ্ছে। যা খুব দুঃখজনক। বলে মত উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি চিরঞ্জীব ভট্টাচার্যের।

সংসদের নোটিশ অনুযায়ী সর্বনিম্ন ৩৫ শতাংশ নম্বর পর্যন্ত ফর্ম দিতে পারে কোনও স্কুল। তবে স্কুলগুলি নিজেদের পরিকাঠামোর ভত্তিতেই ভর্তি করবে। তারপর যারা আবেদন করেছে সেই পড়ুয়ারা সত্যিই বিজ্ঞান নিয়ে পড়তে পারবে কিনা তাও বিচার করবে স্কুল বলেই জানাচ্ছেন শাখাওয়াত মেমোরিয়াল বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা পাঁপিয়া নাগ।

২০০৬ সাল থেকে এই রীতি চলে আসলেও ২০২১ সালে তা পরিবর্তন ঘটে। করোনার জন্য ২১সালে হয়নি মাধ্যমিক পরীক্ষা। সে বছর পাশের হার একশ শতাংশ ছিল। একাদশে ভর্তির ক্ষেত্রে বিজ্ঞান ভিত্তিক বিষয়ে ৩৫ থেকে বাড়িয়ে ৪৫ শতাংশ নম্বর করা হয়। তবে এবার তা কমানো হল কেন? তা নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন বঙ্গীয় শিক্ষক ও শিক্ষা বন্ধু সমিতির সহঃ সাধারণ সম্পাদক স্বপন মণ্ডল।

তবে সংসদ নম্বর বেধে দেওয়ার ফলে অভিভাবকেরা ভর্তির জন্য স্কুলের উপর চাপ সৃষ্টি করেন বলেও মত শিক্ষক মহলের।