Date : 2022-10-01

মানুষের টাকায় আমরা কোনো স্বেচ্ছাচারিতা করতে পারি না। বিধানসভায় বললেন ফিরহাদ হাকিম

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রায় প্রতিটি জেলা প্রশাসনিক পর্যালোচনা বৈঠকে নিয়ম করে বলেন মানুষের টাকায় যা ইচ্ছা তাই করা যায় না। এদিন সেই সুর শোনা গেল পরিবহন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের গলায়। বিধানসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি একথা জানান।

বৃহস্পতিবার নদিয়ার নাকাশিপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক কল্লোল খাঁ বিধানসভায় পরিবহন মন্ত্রীর কাছে জানতে চান তাঁর এলাকার বেথুয়াডহরী বাস স্ট্যান্ডের কাজ কতদিনে শেষ হবে। উত্তরে পরিবহন মন্ত্রী জানান সেই কাজ ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে। অল্প কিছু কাজ বাকি আছে। এরপর কল্লোল খাঁ অতিরিক্ত প্রশ্ন করে বলেন, “উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণবঙ্গের যোগাযোগের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কৃষ্ণনগরের পান্থ তীর্থ এলাকায় বাস গুলো এসে দাঁড়ায়, কিন্তু সেটা সরকারি বাস স্ট্যান্ড নয়। জাতীয় সড়কের উপর নতুন কোনো সরকারি বাস স্ট্যান্ড তৈরির পরিকল্পনা সরকারের আছে কি না?” এই প্রশ্নের উত্তরেই মন্ত্রী জানান, “মানুষের টাকায় আমরা কোনো স্বেচ্ছাচারিতা করতে পারি না।

নদীয়া জেলায় অনেকগুলো বাস স্ট্যান্ড রয়েছে। বেথুয়াডহরীতে আরো একটি বাস স্ট্যান্ড করা হয়েছে। তারপরেও কৃষ্ণনগর হাইওয়েতে আবার নতুন করে কোনো বাস স্ট্যান্ড এর প্রয়োজন আছে কিনা সেটা আমাদের দপ্তরের আধিকারিকেরা সার্ভে করে দেখবেন, তারপর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।” মন্ত্রীর বক্তব্য যেখানে এতগুলো বাস স্ট্যান্ড রয়েছে সেখানে নতুন করে আবার বাস স্ট্যান্ড তৈরি করা মানে সরকারের অর্থের অপচয় তবে অবশ্যই বিধায়কের প্রস্তাব পরিবহন দফতর বিবেচনা করে দেখবে।এদিন আরো এক প্রশ্নের উত্তরে পরিবহন মন্ত্রী জানান, এই মুহূর্তে নতুন করে স্থায়ী কর্মি নিয়োগের কোনো পরিকল্পনা পরিবহন দফতরের নেই। বাম আমলে বাস পিছু তেরো চৌদ্দ জন করে নিয়োগ করে গিয়েছে। তার জের টানতে হচ্ছে এখনো। এইভাবে চালালে তো বাস কর্পোরেশনগুলোই তুলে দিতে হবে। তবে তিনি এটাও জানান যে সরকার এখন যে ই-বাস কিনছে তারজন্য আগামি দিনে অবশ্যই নতুন কর্মি নিয়োগ করা হবে।