Date : 2022-11-29

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় এর নির্দেশ মত রাজ্যজুড়ে শিক্ষা ক্ষেত্রে ১৮ হাজার শূন্যপদ সংক্রান্ত রিপোর্ট জমা দিল রাজ্য

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : ১৮ হাজারের ও বেশি শুন্য পদ এর উল্লেখ রয়েছে রিপোর্ট এ জানালেন জিপি।

১৪৩৩৯ পদ রয়েছে কিন্তু এখনও ঘোষণা করা হয়নি।

কোনো নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়নি আদালত এর কোনো

২১৬৯৪ মোট শুন্য পদের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়নি? আদালত এর বিধিনিষেধ না থাকলে কোনো নিয়োগ শুরু হয়নি। সোমবার এর উত্তর দিতে সময় চাইলেন জিপি।

৩৯৩৬ প্রাইমারি তে শুন্য পদ। জুনে ২০২২। তাহলে এ ক্ষেত্রেও নিয়োগ শুরু হতে পারে। 

প্রাইমারি র ক্ষেত্রে প্রাইমারি নিয়োগ আটকে আছে হাই কোর্ট এ মামলা চলার কারণে। রিপোর্ট এ জানানো হয়েছে। কোন মামলা বলুন?

কে যখন বললেন যে আদালত এর নির্দেশ এর কারণে। সর্বসমক্ষে বলা হয়েছে।

Secondary তেই ২১ হাজার এর বেশি শুন্য পদ রয়েছে।

প্রাইমারি ক্ষেত্রে কোনো শুন্য পদ নেই। তাই আদালত এর নির্দেশ এর প্রশ্ন আসে না।

২৩ ডিসেম্বর ২০২০ নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে প্রাইমারি ক্ষেত্রে। কিন্তু প্রতিদিন শুন্য পদ তৈরি হচ্ছে।

যদি এত শূন্য পদ থেকে তাহলে কোনো নিয়োগ শুরু হচ্ছে না?

Secondary, higher secondary and headmaster পদে কোনো বিধি নিষেধ নেই।

২৫ তারিখ রাজ্যের শিক্ষা ক্ষেত্রে সমস্ত শুন্য পদ এর তালিকা তলব করে ছিলাম। কোনো পূর্ণ ব্যাক্তির বক্তব্য এর ভিত্তিতে সংবাদ মাধ্যমএর খবর থেকে জানতে পারি যে ১৮ হাজার চাকরি তৈরি আছে।

আদালত এ মামলার কারণে চাকরি আটকে আছে। কিন্তু আজ হলফনামা থেকে দেখা যাচ্ছে প্রাথমিক ক্ষেত্রে ৩৯৩৬ শুন্য পদ রয়েছে এবং আদালত এর কোনো নির্দেশ নাই যাতে এই শুন্য পদে নিয়োগ করা যাবে না। বুঝতে পারছিনা কোনো বোর্ড কে রিপোর্ট দেওয়া হলো না কোনো নিয়োগ শুরু করা হলো না। এই পদে নিয়োগ এর বিজ্ঞপ্তি ডিরেক্টরেট অফ স্কুল এডুকেশন কোনো দেরি করছে জানি না। আদালত এর কোনো বিধিনিষেধ নেই যাতে নিয়োগ শুরু করা যাবে না। ভবিষ্যতে যা শুন্য পদ তৈরি হবে একটা নির্দিষ্ট তারিখ পর্যন্ত।

ডিরেক্টরেট অফ স্কুল এডুকেশন রিপোর্ট জমা দেবে কোনো সেটা জানানো হলো না বিধি নিষেধ কোথায়? ১৭ আগস্ট রিপোর্ট জমা দিতে হবে।

আমি যেহেতু প্রাইমারির এবং মাদ্রাসার জন্য ভারপ্রাপ্ত তাই আমি এই বিষয় গুলো নিয়ে সীমাবদ্ধ থাকবো। কিন্তু রিপোর্ট থেকে লক্ষ করছি সেকেন্ডারি ক্ষেত্রে

১৩৮৪২/ ৯ ১০

৫৫২৭ /১১ ১২

২৩২৫/ হেড মাস্টার

এই মোট ২১৬৯৪ ভেসেন্সি র ক্ষেত্রে আদালত এর কোনো বিধি নিষেধ নেই যাতে নিয়োগ শুরু করা যাবে না। এ বিষয়ে আর কোনো মন্তব্য করতে চাইছি না।

দেখা যাচ্ছে যে ১৮ হাজার এর বেশি শুন্য পদ রয়েছে যেখানে নিয়োগ এর ক্ষেত্রে বিডি নিষেধ নেই। কোনো তাহলে আদালত কে নিশানা করা হলো এটা আমার বোধগম্য হচ্ছে না। আমার বিশ্বাস

বিচারক্ষেত্রে কে নিয়োগ বা অন্য ক্ষেত্রে বাগড়া দান করি হিসাবে ব্যাবহার করার আগে সকলে গুরত্ব পূর্ণ এবং গুরুত্বপূর্ণ নন এমন ব্যাক্তিরা সতর্ক হবেন এই ধরনের মন্তব্যের ক্ষেত্রে। এটা বার বার সহ্য করা হবে না । রাজনৈতিক ময়দানে বিচারক্ষেত্রে কে টেনে আনার জন্য সঠিক পদক্ষপ নেওয়া হবে ।