Date : 2022-12-02

বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়কে ২৫হাজার টাকার আর্থিক জরিমানা করলো হাইকোর্ট

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষকে আর্থিক জরিমানার পাশাপাশি ৭দিনের মধ্যে মামলাকারিকে পুনরায় নিয়োগ করতে হবে নির্দেশ বিচারপতি কৌশিক চন্দ্রের। শুক্রবার বিচারপতি কৌশিক চন্দ্র নির্দেশ উল্লেখ করেছেন এখানে মামলাকারীকে শাস্তি দেওয়া হয়েছে কোনো রকম প্রমানপত্র ছাড়াই।
যদিও মামলাকারীকে টেমপোরারি বেসিস নিয়োগ করা হলেও,এটা স্বাভাবিক ন্যায়ের বিরোধী।যে কারণে বিশ্বভারতীর ডকুমেন্টেশন সহকারীকে অন্যায় ভাবে বরখাস্ত করায়, মামলাকারীকে মামলার খরচ বাবদ ২৫ হাজার টাকা দিতে হবে এবং ৭ দিনের মধ্যে বকেয়া মিটিয়ে নিয়োগ করার নির্দেশ দেন তিনি।

প্রসঙ্গত ২০১৩ সালের মার্চ মাসে মামলাকারি শ্রাবণী গাঙ্গুলিকে বিশ্বভারতীর ভাষা ভবনে, ডকুমেন্টশন সহকারী হিসেবে নিয়োগ করা হয়।এবং ২০১৪ তে মার্চ থেকে অগাস্ট পর্যন্ত একবার তাকে সাময়িক ভাবে কয়েকমাসের জন্য বসিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।ওই বছরই ফের তাকে ফের নিয়োগ করা হয়। অবশেষে ২০২০ মার্চ ফের তাকে সোকজ করেন বিশ্বভারতীর রেজিস্ট্রার। মামলাকারি শ্রাবনী গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে তিনি বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি অন্যত্র কাজ করছেন।যেকারণে শ্রাবনী দেবীকে শোকজ করা হয় ।যদিও শোকজ নোটিসের তিনি উত্তর দিয়েছিলেন শ্রাবণীদেবী।

মামলাকারি বিশ্ব ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি অন্যত্র কাজে যুক্ত রয়েছেন কিনা তা খতিয়ে দেখতে একটি অনুসন্ধান কমিটি গঠন করা হয়। ৪ঠা জুলাই ২০২০ সালে শ্রাবনী গঙ্গোপাধ্যায়কে চাকুরী থেকে বহিস্কার করার হয় অনুসন্ধান কমিটির রিপোর্টের ভিত্তিতে বলে অভিযোগ।তাঁর বিরুদ্ধে কমিটি আর একটি অভিযোগ আনেন যে তিনি ভাষাভবনের অর্থ অপব্যবহার করেছেন ।যদি বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষের তরফে অনুসন্ধান রিপোর্ট তাঁর হাতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেন শ্রাবনী দেবী।

শুক্রবার মামলার শুনানি চলাকালীন বিশ্ব ভারতী বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষের তরফ থেকে
কেন শ্রাবনী গঙ্গোপাধ্যাকে সরানো হল তার সপক্ষে কোনো নথি আদালতে দেখাতে পারেননি। এই মামলায় আদালতের পর্যবেক্ষণ মনে করেছেন এখানে মামলাকারীকে শাস্তি দেওয়া হয়েছে কোনো রকম প্রমানপত্র ছাড়াই।
যদিও মামলাকারীকে অস্থায়ী ভাবে নিয়োগ করা হলেও এটা স্বাভাবিক ন্যায়ের বিরোধী।
বিচারপতি কৌশিক চন্দ্র নির্দেশ দেন আগামী
৭ দিনের মধ্যে শ্রাবনী দেবীকে নিয়োগের পাশাপাশি তাঁর বকেয়া মিটিয়ে দিতে হবে।