Date : 2022-08-11

মোমো বানিয়ে তাক লাগালেন মুখ্যমন্ত্রী, এর আগে ফুচকা বানিয়ে শিশুদের খাইয়েছিলেন

মাম্পি রায়, নিউজ ডেস্ক : পাহাড় সফরের শেষদিনেও স্বমহিমায় জনসংযোগ সারলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের সঙ্গে বসে মোমো বানিয়ে তাক লাগালেন তিনি। বুধবার পাহাড়ের রাস্তায় ফুচকা তৈরি করে শিশুদের হাতে তুলে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাসিন্দাদের অভাব অভিযোগের কথাও শোনেন তিনি।

জিটিএর শপথগ্রহণের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পাহা়ড়ে গিয়ে জনসংযোগে জোর দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। যদিও প্রতিবারই পাহাড়বাসীর সঙ্গে এভাই খোশমেজাজে দেখা যায় তাঁকে। এবারও তার অন্যথা হল না। বুধবারও পাহাড়ের কোলে হাঁটতে হাঁটতে তিনি দেখতে পান ফুচকার স্টল। সেখানে নিজে হাতে ফুচকা বানিয়ে স্থানীয় শিশুদের খাওয়ান মুখ্যমন্ত্রী। ফুচকায় পুর এবং তেঁতুল জল ভরে শিশুদের হাতে তুলে দেন তিনি। এভাবে মুখ্যমন্ত্রী ফুচকা বানিয়ে খাওয়াচ্ছেন তা দেখতে দেখতে ভিড় জমান পাহাড়ের বাসিন্দারা। ফুচকা বানানোর ফাঁকে বাসিন্দাদের সঙ্গে খোশগল্পে মাতেন মুখ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার সকালে ফের পাহাড়ে হাঁটতে বেরোন তিনি।

একেবারে ঘরের মেয়ে হয়ে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের সঙ্গে বসে মোমো বানিয়ে তাক লাগিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিজে হাতে লেচি কেটে, ময়দা বেলে, তাতে পুর ভরে বানিয়ে ফেললেন মোমো। বুধবার দার্জিলিঙের রাস্তায় হেঁটে দোকানে গিয়েও জনসংযোগ করতে দেখা গিয়েছিল মুখ্যমন্ত্রীকে। আলু, পেঁয়াজের দাম জিজ্ঞেস করেন তিনি। একটি শিশুকে কোলে তুলে নিয়ে চকোলেট খাওয়াতেও দেখা যায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। এভাবে জনসংযোগের মাধ্যমে তিনি বোঝালেন পাহাড়ের মানুষ তাঁর কাছে কত আপন। তৃণমূল ঘনিষ্ঠ বিজিপিএম জিটিএ নির্বাচনে জয়লাভ করায় পাহাড়ে যে নয়া সমীকরণ তৈরি হয়েছে। এরইমাঝে মুখ্যমন্ত্রীর এই ধরণের জনসংযোগ অন্যমাত্রা দিয়েছে। সবমিলিয়ে উত্তরবঙ্গ হোক বা দক্ষিণবঙ্গ, সাধারণের ভিড়ে মুখ্যমন্ত্রীর মিশে যাওয়ার এই কায়দায় মুগ্ধ বঙ্গবাসী।