Date : 2022-12-02

রাজ্যের বাইরে নিয়ে যাওয়া যাবে না পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে।রাজ্যে রেখেই তাঁর চিকিৎসা করাতে হবে: হাইকোর্ট

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক: রবিবার হাই কোর্টে ইডির পক্ষের আইনজীবী এম ভি রাজু এবং ফিরোজ এডুলজি আদালতে জানান পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠর বাড়ি সহ একাধিক জায়গা থেকে তল্লাশি চালিয়ে বিপুল অর্থ উদ্ধা হওয়ার পর পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে গ্রেপ্তার করা হয়। তারপর সমস্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর নিম্ন আদালতে।
১৪ দিনের জন্য হেফাজতে চাওয়া হয়েছিল কিন্তু আমাদের অন্ধকারে রেখে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে আইনজীবীর উপস্থিতি তে জেরা করতে নির্দেশ দিয়েছে নিম্ন আদালত। এছাড়াও আমরা যখন তার শারীরিক পরীক্ষা করি তখন তিনি সুস্থ ছিলেন। তাকে বেছে বেছে একটি হসপিটালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এটাও আমাদের না জানিয়ে করা হয়েছে। ওই হাসপাতলে বসে ডন এর মত ব্যাবহার করছেন। হাসপাতালে বসে পার্থ ইডি অধিকারিকদের সাসানি দিচ্ছেন। জোকা ই এস আই হাসপাতালে তিনি ফিট ছিলেন তারপর বিকেলে তিনি এমন অসুস্থ হলেন যে তাকে হাসপাতালের আইসিইউ তে ভর্তি করতে হলো? গ্রেপ্তার করার পর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার দায়ীত্ত ইডি র। অভিযুক্ত কোন হাসপাতালে যাবেন সেটা তার পছন্দ হতে পরে না। এছাড়া আইনজীবীর সামনে জেরার নির্দেশ এটা বিচার এর নামে প্রহসন। আমাদের বক্তব্য না শুনেই নিম্ন আদালত এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমাদের কপি সার্ভ করা হয়নি।
আমাদের বক্তব্য শোনা হয়নি। নির্দিষ্ট একটি হাসপাতালে পাঠানোর নিম্ন আদালতের কোনো এক্তিয়ার নেই। এটা উচ্চ পর্যায়ের দুর্নীতি। একাধিক প্রার্থীর জীবনের প্রশ্ন। টাকা দিয়ে চাকরি বিক্রি হয়েছে। আমরা তাকে জেরা করতে চাই। যদি টাকা লেনদেন হয় থাকে তাহলে টা কোথায় গেলো। আমরা জেরা করে জানতে চাই।
তিনি প্রভাবশালী। হাসপাতালকে তিনি প্রভাবিত করতে পারেন। অসুস্থতার নাটক করে তিনি হাসপাতালে লুকিয়ে থাকতে পারে না । এই মামলায় হাইকোর্ট নজর দারি করছে। এটা এক উচ্চ পর্যায়ের রাজনৈতিক ব্যাক্তির ড্রামা। ওই হাসপাতাল কারণ তিনি সেখানে যা খুশি তাই করতে পারেন।
বিচারপতি বিবেক চৌধুরী
আপনাদের কাছে ওই আবেদনের কোনো কপি আছে? না থাকলে ধরে নেওয়া যেতে পারে আপনারা কিছু লুকোতে চাইছেন ।
ইডির আইনজীবী এম ভি রাজু
আবেদন এ যা বলা হয়েছে তার স্বপক্ষে কোনো ডকুমেন্ট নেই। কোনো মেডিকেল রিপোর্ট দেওয়া হয় নি
যদি কাস্টডিতে কিছু হয় তাহলে আমরা দায়ই থাকবো। আমরা। তাকে মেডিক্যাল পরিষেবা বা বেস্ট হাসপাতালে নিয়ে যেতে বাধ্য। প্রয়োজনে কল্যাণী Aims এ নিয়ে যেতে পারি। কিন্তু অভিযুক্ত কোন হাসপাতালে যাবেন সেটা তার পছন্দ হতে পারে না।আইনের হাত থেকে পার পাওয়ার জন্য তিনি নিজের পছন্দের হাসপাতালে যেতে পারেন না। এখনও আমরা তাকে রিমান্ড এ নিতে পারিনি।

দেবাশীষ রায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের আইনজীবী
কোনো নির্দেশ ইডি কে অন্ধকারে কেখে করা হয়নি।
১৪ তারিখ কিছু তথ্য আমার বাড়ি থেকে পাওয়া যায়। যার বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে তাকে আগে গ্রেপ্তার করা হয়নি। ইএসআই জোকা হাসপাতাল কে জোর করে লেখানো হয়েছে যে পার্থ চট্টোপাধ্যায় সুস্থ রয়েছেন।
আমরা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য আবেদন করেছিলাম। আমরা বলেছিলাম তার চিকিৎসার প্রয়োজন।
বিচারপতি বিবেক চৌধুরী
এটা তো মেনে নেবেন যে বারবার ওই হাসপাতাল সেফ জোন হচ্ছে। মদন মিত্র, অনুব্রত মণ্ডল বার বার সেখানেই ভর্তি হয়েছেন যখন কিছু লুকানোর প্রয়োজন হয়েছে। এটা হল safe zone। কিছু লোকানোর জন্য।
বিবেক চৌধুরী
নিম্ন আদালতে কাল বিষয় টি শোনা হবে। ইডির একটা সন্দেহ জেগেছে যে পার্থ চট্টোপাধ্যায় ওই হাসপাতাল থেকে প্রভাব বিস্তার করতে পারেন। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের চাইছেন একটা সুপারস্পেসালিটি হাসপাতালে তার চিকিৎসা।
আমার প্রস্তাব
দিল্লি এইমসের Head of the dipartment cardiology, nephro, general, medicine এর চিকিৎসকরা এখানে আসুন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ব্লাড স্যাম্পেলিং টেস্ট হোক এখানকার একটি নিরপেক্ষ ল্যাব roy and ত্রিবেদী থেকে। sskm er চিকিৎসরাও থাকুন।
ইডি ওনাকে আমরা Aims কল্যাণী তে নিয়ে যেতে পারি।
বিচারপতি
এইমস কল্যাণীতে নিয়োগ নিয়ে রাজ্য সরকারের আপত্তি রয়েছে সেজন্য আমি সেখানে বলতে পারিনা। আপনারা ভুবনেশ্বর থেকে চিকিৎসকদের নিয়ে আসুন ।

প্রয়োজনে আমরা পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে এয়ার অ্যাম্বুলেন্স করে নিয়ে যেতে পারি ওনার পছন্দের চিকিৎসকরাও থাকবেন। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর আবার কাল বিকেল সাড়ে তিনটের মধ্যে ওনাকে এখানে নিয়ে আসা হবে।
সব বক্তব্য শুনে রায়দান স্থগিত রেখেছে আদালত। শীঘ্রই রায় ঘোষণা হবে