Date : 2022-12-02

সংশোধনাগার গুলিতে মাত্রাতিরিক্ত বন্দীদের নিয়ে চিন্তিত হাইকোর্ট।রাজ্য সরকারের কাছে প্রধান বিচারপতি ডিভিশন বেঞ্চের।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : রাজ্যের বিভিন্ন সংশোধনাগারী বন্দীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমানে সেই সংখ্যা অত্যধিক হবার ফলে সীমিত জায়গার মধ্যে অধিক বন্দিদের থাকতে হচ্ছে।
হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী গত জানুয়ারি মাসে প্রায় ৩৬ জন মরণাপন্ন বন্ধিদের মুক্তি দেওয়া হয়েছে।
পুনরায় এই ধরনের মরণাপন্ন বন্দী আরও কত আছে তা পর্যালোচনা করে কলকাতা হাইকোর্টের কাছে রিপোর্ট জমা করতে হবেরাজ্য সরকারকে।

দীর্ঘ বছরের বছর ধরে সাজাপ্রাপ্ত বন্দীদের মুক্তির জন্য একটি নির্দিষ্ট কমিটি আছে। ওই কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সম্প্রতি প্রায় ১০০ জন বন্দিকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। জেলা আদালতের প্রক্রিয়ার জন্য সেই বন্দিদের এখনো পর্যন্ত ছাড়া সম্ভব হয়নি। হাইকোর্ট দ্রুত বিষয়টি নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছে।

পাশাপাশি হাইকোর্টের নির্দেশ পুনরায় রাজ্যকে পর্যালোচনা করে দেখতে হবে আরও কত জনকে মুক্তি দেওয়া যায়। তার তালিকা ওই বন্দী মুক্তির কমিটির কাছে পাঠাতে হবে। সেই রিপোর্টও ৮ আগস্ট হাইকোর্টে জমা করতে হবে।

সংশোধনাগারে বন্দিদের উপযুক্ত চিকিৎসা হচ্ছে কিনা সে বিষয়ে নজর রাখতে হবে।সংশ্লিষ্ট সংশোধনাগারের সুপার কে। চিকিৎসা সংক্রান্ত রিপোর্ট পেশ করতে হবে।

বিভিন্ন রাজ্য এবং বিদেশ থেকে অনুপ্রবেশকারী যাদের সাজা ইতিমধ্যে শেষ হয়ে গেছে এবং সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী তারা মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে তাদের বিষয়টিও অতি দ্রুত যাতে নিষ্পত্তি হয় সে বিষয়ে একটি রিপোর্ট তৈরি করে আদালতে জমা করতে হবে।এমনটাই নির্দেশ প্রধান বিচারপতি র ডিভিশন বেঞ্চের। মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ৮ই অগাস্ট।