Date : 2022-08-11

উচ্চ মাধ্যমিকের খাতা দেখায় গাফিলতির অভিযোগ। রিভিউ ও স্ক্রুটিনিতে বেড়েছে রেকর্ড নম্বর

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : রিভিউ ও স্ক্রুটিনির ফল প্রকাশের পর মেধাতালিকা পরিবর্তন ঘটেনি। তবে একটি পত্রে সর্বোচ্চ নম্বর বেড়েছে ৫৮, যা সংসদের ইতিহাসে রেকর্ড। এতটা নম্বরে তফাৎ থাকায় প্রশ্ন উঠছে শিক্ষকদের খাতা দেখা নিয়ে। সংসদ সূত্রে খবর, খাতা দেখায় গাফিলতির জেরে, শোকজ হতে পারেন পরীক্ষকরা। যদিও এনিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

চলতি বছর ১০ জুন প্রকাশিত হয়েছে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল।পাশের হার  ৮৮.৪৪  শতাংশ। ৬ লক্ষ ৩৬ হাজার ৮৭৫ জন পাশ করেছে। পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, কালিম্পং-সহ ৭ জেলায় পাশের হার ৯০ শতাংশের বেশি। ছাত্রদের পাশের হার ৯০.১৯ শতাংশ, ছাত্রীদের ক্ষেত্রে এই হার ৮৬.৮৯ শতাংশ। প্রথম থেকে দশম পর্যন্ত মেধাতালিকা প্রকাশ করেছে সংসদ। এই তালিকায় রয়েছে ২৭২ জন। ছাত্র ১৪৪, ছাত্রী ১২৮ জন। এছাড়া ওয়েবসাইটে দেখা যাবে জেলাভিত্তিক মেধাতালিকা।  ফলপ্রকাশের পর নম্বর নিয়ে সন্তুষ্ট নন এমন পরীক্ষার্থীরা রিভিউ ও স্ক্রুটিনির জন্য আবেদন করে। এবার স্ক্রুটিনির জন্য খাতা জমা পড়েছিল ৮৩৬১ টি। রিভিউর জন্য খাতা জমা পড়েছিল ৮৫ হাজার ২২৭ টি। মোট ৯৩,৫৮৮টি খাতা জমা পড়েছিল।
৯২ হাজারের মতন খাতার ফল প্রকাশ করা হয়েছে । এখনো দেড় হাজার মত খাতার ফলপ্রকাশ বাকি আছে বলে জানিয়েছেন সংসদ সভাপতি। ৮০শতাংশ আবেদনকারীর এক থেকে পাঁচ নম্বর বেড়েছে। ১০ থেকে ৩০ নম্বর বেড়েছে একাধিক আবেদনকারীর। সর্বোচ্চ বেড়েছে ৫৮ নম্বর। এক পরীক্ষার্থী একটি বিষয়ে পেয়েছিলেন মাত্র ছয় নম্বর। সেই নম্বর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬০। ২০১৮ সর্বোচ্চ বেড়েছিল সালে ২৭ নম্বর।
২০১৯ সালে বেড়েছিল ৫২ নম্বর ।

চলতি বছর রিভিউ ও স্ক্রুটিনির পর নম্বরের ক্ষেত্রে বড়সড় পরিবর্তন ধরা পড়েছে সংসদের চোখে। যা বিগত কয়েক বছরের তুলনায় সর্বাধিক। প্রায় ১৯.৮৫ শতাংশ ছাত্রছাত্রীর নম্বর বেড়েছে এবার। তাই পরীক্ষকদের খাতা দেখার মান নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন । খাতা দেখার ক্ষেত্রে যেমন নম্বর যোগ করতে ভুল করেছেন বেশ কিছু শিক্ষক তেমনই নম্বর দিতেও ভুল করেছেন অনেকে। এই ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে না ঘটে তার জন্য কড়া ব্যবস্থা নিতে চায় সংসদ। খুব দ্রুত এনিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও জানা গেছে।