Date : 2022-09-27

জাদু না বাস্তব ! কোল্ড ড্রিঙ্কসের বোতলে দাঁড়াচ্ছে সোফা থেকে হারমোনিয়াম।

শাহিনা ইয়াসমিন, সাংবাদিকঃ একটা ছোট কোল্ড ড্রিঙ্কসের বোতল। তার উপর দাঁড় করানো হেভিওয়েট সোফা ও হারমোনিয়াম। কীভাবে সম্ভব এটা। জাদু নাকি ? কী করে হচ্চে এই সব কর্মকাণ্ড তা জানতেই এক বিশেষ প্রতিবেদন।
কোল্ড ড্রিঙ্কসের ছোট একটি বোতলে আস্ত এক সোফা ও হারমোনিয়াম দাঁড় করিয়ে দিচ্ছেন অনায়াসে। সোফা বা হারমোনিয়ামের কোনাটুকু মাত্র ঠেকিয়ে দাঁড় করানো। তা দেখেই হতবাক। কী করে সম্ভব এটা। শুধু তাই নয়। বোতলের উপর হারমোনিয়াম তার উপর আবার ছোট চৌকি সঙ্গে কাঁচের বোতল। কোনও আঠা দিয়ে জোড়া নয়। ঠিক সটান দাঁড়িয়ে রয়েছে। না না কোনও জাদু বা ভুতুড়ে কাণ্ড নয়। পুরোটাই সায়ন্স।

পদার্থ বিজ্ঞানে ভরকেন্দ্র সম্পর্কে অল্পবিস্তর জ্ঞান বা ধারণা সবারই জানা আছে। পড়ার বইয়ে থাকা এই বিজ্ঞানকে প্র্যাকটিক্যাল জীবনে নিয়ে আসার নাম হল পয়েন্ট ব্যালেন্সিং আর্ট। এই আর্ট বা শিল্পকে ভালোবেসে করে যাচ্ছেন ইলেকট্রনিক্সের অধ্যাপক প্রিয়দর্শী মজুমদার। দমদম নাগেরবাজারের বাসিন্দা প্রিয়দর্শী মজুমদার। তিনি ব্যারাকপুর রাষ্ট্রগুরু সুরেন্দ্রনাথ কলেজ পড়ান। তাঁর এই কর্মকাণ্ডের জন্য বেশ নামডাক আছে।

নিজের শিল্পকলা প্রদর্শনের পাশাপাশি পয়েন্ট ব্যালেন্সিং আর্টকে ছড়িয়ে দিতে ছোটখাটো শোও করেছেন। তার জন্য অনেক সম্মানও পেয়েছেন তিনি। শুধু সখ থাকলে হবে না। এই শিল্পে দক্ষতা পেতে প্র্যাকটিস চালিয়ে যেতে হয়। শুধু হারমোনিয়াম বা সোফা নয়। টিভি, গ্যাস সিলেন্ডারেও উপরও এক্সপেরিমেন্ট করেছেন প্রিয়দর্শীবাবু। এই কাজের জন্য প্রিয়দর্শীবাবু সর্বদা পাশে পেয়েছেন পরিবার ও বন্ধুবান্ধবদের।এই শিল্পকে করতে যেমন মনঃসংযোগ লাগে তেমনি ধৈর্যও চূড়ান্ত লাগে। তবেই একাজে সফলতা পাওয়া যায়।

এখনও পর্যন্ত তিনি ১০০র উপরে জিনিসপত্রের উপর পয়েন্ট ব্যালেন্সিং আর্ট করেছেন বলে জানান। এমনকি তাঁর এই কাজের জন্য ২০২২-এ ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে নাম উঠেছে প্রিয়দর্শীবাবুর। তবে এখানেই তিনি থেমে থাকবেন না। আরও নতুন নতুন জিনিসের উপর নিজের শিল্পকলা দেখানোর প্রয়াস করেই যাবেন বলে জানান।