Date : 2022-09-27

ED’র আতশ কাঁচেকি এবার শাসক দলের স্পেশাল১৯!তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীদের সম্পত্তির মামলায় ইডি কে অন্তর্ভুক্ত করার নির্দেশ ডিভিশন বেঞ্চের।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক :

২০১৭সালে শাসকদলের নেতা-মন্ত্রীদের সম্পত্তির বাড়বাড়ন্ত নিয়ে কলকাতা হাই কোর্টে দায়ের হয়েছিল জনস্বার্থ মামলা ।রাজ্যের শাসক দলের জনপ্রতিনিধিদের সম্পত্তি উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে কোন পথে? এই প্রশ্ন তুলে সমাজকর্মী মামলাকারী বিপ্লব কুমার চৌধুরী রাজ্যের ১৯ জন নেতা, মন্ত্রীর বিরুদ্ধে জনস্বার্থ মামলাটি দায়ের করে ছিলেন।যাঁর মধ্যে অনেকেই দল পরিবর্তন করে ছিলেন আবার অনেকে পুরানো দলে ফিরেও এসেছেন। সোমবার মামলার শুনানি জন্য ওঠে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্ত ও বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চে। ৫ বছর আগে দায়ের হওয়া মামলায় ইডিকে অন্তর্ভুক্ত করার নির্দেশ দেন ডিভিশন বেঞ্চ।

মামলাকারি সমাজকর্মী বিপ্লব কুমার চৌধুরীর আবেদনে জানানো হয়েছে,২০১১ সাল থেকে শাসক দলের নেতা-মন্ত্রীদের সম্পত্তির হিসেবনিকেশ করে দেখা গিয়েছে, এক এককজনের সম্পত্তির পরিমাণ বেড়েছে হাজার গুণ পর্যন্ত।সেই তালিকায় কে নেই? নাম শুনলেও অবাক হয়ে যাওয়ার মতো। গত দশ বছরের অনেকের সম্পত্তি বেড়েছে বলে অভিযোগ ।একনজরে দেখে নেওয়া যাক।কলকাতা হাই কোর্টে যে নামের তালিকা জমা পড়েছে তাঁরা কে কে?
২০১১সালে তৎকালীন যাঁরা যাঁরা মন্ত্রিপদে ছিলেন তাঁরা হলেন খাদ্য মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক,আইন মন্ত্রী মলয় ঘটক,উত্তর বঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী গৌতম দেব, লোকসভার সাংসদ ইকবাল আহমেদ(প্রয়াত হয়েছেন) পুর ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, বিধায়ক স্বর্ণকমল সাহা,শিক্ষা মন্ত্রী ব্রাত্য বসু,তৎকালীন অগ্নি নির্বাপন দফতরের মন্ত্রী জাভেদ খান,কৃষি বিপণন মন্ত্রী অরূপ রায়,সিপিএম ছেড়ে আসা আবদুর রেজ্জাক মোল্লা,বন দফতরের তৎকালীন মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়,বিধায়ক তথা বিধাননগর পুরসভার চেয়ারম্যান সব্যসাচী দত্ত বিধায়ক শিউলি সাহা ,রাজ্যের প্রাক্তন অর্থ মন্ত্রী অমিত মিত্র এবং রাজ্য বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যা ছাড়াও নাম ছিল প্রয়াত মন্ত্রী সাধন পান্ডে এবং সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের নামও।

২০১১ সালে বিধানসভা নির্বাচন ছিলতৃণমূল কংগ্রেসের কাছে কঠিন লড়াই। ৩৪,বছরের বামফ্রন্ট সরকারের পতনের মূল কারিগর ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সময়ের দেওয়া তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীদের দেওয়া নির্বাচন কমিশনের কাছে দেওয়া হলফনামায় সম্পত্তির খতিয়ান যা দেওয়া হয়েছিল২০১৬ সালে সেই সম্পত্তি পাহাড়ের চূড়ায় ঠেকেছে বলে অভিযোগ মামলাকরির।যে কারণে তিনি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন।

গত ৫ বছরে কলকাতা হাই কোর্টে প্রায় জনা সাতেক প্রধান বিচারপতি পরিবর্তন হয়েছেন।মামলা তাঁর নিজের গতিতে এগিয়ে গেছে।কিন্ত সম্প্রতি রাজ্যের এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতির মামলায় রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্য়ায় ইডির হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার পর তাঁর ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে কোটি কোটি টাকা উদ্ধার হয়েছে। সেসব পার্থ ঘনিষ্ঠরাই তাঁর বাড়িতে রেখেছেন বলে দাবি ছিল অর্পিতার। এত বিপুল পরিমাণ সম্পত্তির সঙ্গে মন্ত্রীর নাম জড়িয়েছে। তার তদন্তে রয়েছে ইডি।

এবার কি ইডির তালিকায় লম্বা হচ্ছে!ইডির আতশ কাঁচে উঠে আসবে শাসক দলের নেতা মন্ত্রীদের স্ত্রীর সম্পত্তির হিসেবে নিকেশ!কীভাবে স্বামীর সাথে তাঁদের স্ত্রীদের সম্পত্তির বাড়বাড়ন্ত প্রশ্ন তুললেন কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবী মহলের একাংশ।

আগামী সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে মামলার পরবর্তী শুনানি।