Date : 2022-09-27

শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক ইতিবাচক। বৈঠকে আশ্বস্ত চাকরিপ্রার্থীরা।

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : এসএসসি-র পর প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগেরও জট কাটাতে উদ্যোগী শিক্ষাদফতর। প্রাথমিকের টেট উত্তীর্ণদের সঙ্গে বৈঠক করলেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। বুধবার বিকাশ ভবনে হলো এই বৈঠক। ২০১৪ সালের প্রাথমিকে টেট পাস করা চাকরিপ্রার্থীদের ৬ জন প্রতিনিধি সঙ্গে কথা বলেন তিনি। তারপর ২০১৭ সালের প্রাইমারি টেট উত্তীর্ণদের সঙ্গেও কথা বলেন ব্রাত্য বসু। আইনের পথে হেঁটে খুব শীঘ্রই চাকরির জট খোলার আশ্বাস দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। সোমবার চাকরিপ্রার্থীরা লিখিতভাবে তাঁদের দাবিদাওয়া জানাবেন শিক্ষামন্ত্রীকে।

দীর্ঘদিন ধরে কলকাতার বিভিন্ন রাস্তায় চাকরির দাবিতে আন্দোলনে সামিল হয়েছেন প্রাথমিকের টেট উর্ত্তীন্ন চাকুরিপ্রার্থীরা। তাদের নিয়োগের বিষয়ে আশ্বাস দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চাকুরিপ্রার্থীদের বক্তব্য,২০২০ সালে ১৬ হাজার ৫০০ জন শিক্ষক নিয়োগের ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী সেই নিয়োগ হয়নি বলে অভিযোগ আন্দোলনকারীদের। ১২ হাজার পদে নিয়োগ হয়েছে বলে দাবি তাঁদের। বাকি সাড়ে ৪ হাজার পদে এখনও নিয়োগ হয়নি বলে দাবি চাকরিপ্রার্থীদের। তাদের এই দাবির কথা শিক্ষামন্ত্রীকে দিন জানান ২০১৪র প্রাইমারি টেট উর্ত্তীন্ন চাকরি প্রার্থীরা। সোমবার তাদের সেই দাবি তারা লিখিত আকারে শিক্ষামন্ত্রীর কাছে জমা দেবেন। বৈঠক শেষে চাকরিপ্রার্থীদের জানিয়েছেন, শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। দ্রুত চাকরি মেলার আশ্বাস দিয়েছেন মন্ত্রী। তবে যতক্ষণ না সকলে নিয়োগপত্র পাচ্ছে ততক্ষণ আন্দোলন চলবেও জানিয়েছেন তারা।

এদিকে বৈঠক শেষে শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, “আইনের বাইরে যাব না। আইন মেনেই যে নিয়োগ সম্ভব তা করব। আদালত যে নিয়ম করে দিয়েছে সেই নিয়ম মেনে নিয়োগ প্রক্রিয়া করা হবে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তত তাড়াতাড়ি নিয়োগ জট খুলব। আলোচনা ইতিবাচক হয়েছে।” তবে কবে থেকে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু এদিনও তা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি শিক্ষামন্ত্রী। শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার পর কিছুটা হলেও আশ্বস্ত চাকুরী প্রার্থীরা।

৮ আগস্ট এস এল এস টি নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় মেধা তালিকাভুক্ত চাকুরি প্রার্থীদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন শিক্ষামন্ত্রী। সেদিনের সেই বৈঠকের পর নিয়োগ সংক্রান্ত প্রক্রিয়ার কাজ কিছুটা এগিয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।