Date : 2022-12-03

সুপ্রিম কোর্টে ধাক্কা প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের প্রাক্তন সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যের। জেলেই থাকতে হচ্ছে মানিককে

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : ইডির গ্রেপ্তারিকে চ্যালেঞ্জ করে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই মামলা খারিজ হয়ে গেল সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি অনিরুদ্ধ বসুর ডিভিশন বেঞ্চে।শীর্ষ আদালত সিবিআইয়ের গ্রেপ্তারির বিরুদ্ধে রক্ষাকবচ দিয়েছিল। ইডি সম্পূর্ণ ভিন্ন একটি তদন্ত করছে। এই গ্রেপ্তারির বিরুদ্ধে কোনও রক্ষাকবচ ছিল না। তাই গ্রেপ্তারির অবৈধ নয়।

ইডির গ্রেফতারি নিয়ে কোনও সমস্যা ছিল না। মানিকের আইনজীবী মুকুল রোহতগি আদালতে সওয়াল করেছেন, যে সুপ্রিম কোর্ট সিবিআই মামলায় তাঁকে রক্ষাকবচ দিয়েছিল। যার অর্থ এ ব্যাপারে সব কানেক্টেড মামলাতেই রক্ষাকবচ পেয়েছিলেন মানিক ভট্টাচার্য। কিন্তু তা গ্রাহ্য না করে ইডি মানিক ভট্টাচার্যকে গ্রেফতার করে।আবার ইডির তরফে আইনজীবী তথা সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহেতা তাঁর সওয়ালে বলেছিলেন যে, দুটি বিষয় পৃথক। ইডি বেআইনি টাকার লেনদেন নিয়ে তদন্তের স্বার্থে মানিক ভট্টাচার্যকে গ্রেফতার করেছে। দুটি বিষয়কে গুলিয়ে ফেললে চলবে না। বিচারপতি অনিরুদ্ধ বসুর বেঞ্চ ইডির যুক্তিই মেনে নেয়।
মানিকের আইনজীবীরা আদালতকে জানিয়েছিলেন যে তাঁদের মক্কেলের সঙ্গে ঠিকমতো দেখা করতে দেওয়া হচ্ছে না। এ ব্যাপারে উপযুক্ত আদালতে যাওয়ার ব্যাপারে তাঁদের পরামর্শ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

সিবিআইয়ের গ্রেপ্তারি এড়াতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তৃণমূল বিধায়ক মানিক ভট্টাচার্য। মিলেছিল রক্ষাকবচও। অর্থাৎ তাঁকে গ্রেপ্তার করতে পারবে না কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। সেই রক্ষাকবচের বলয় থাকা সত্ত্বেও তাঁকে গ্রেপ্তার করে ইডি। রক্ষাকবচ থাকা সত্ত্বেও ইডির গ্রেপ্তারি অবৈধ দাবি করে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন মানিক।