Date : 2022-12-05

ডেঙ্গির বলি শিশুরাও! নতুন করে বাড়ছে উদ্বেগ

সায়ন্তিকা ব্যানার্জি, সাংবাদিক:- গত ৫ বছরে ডেঙ্গির এমন বাড়বাড়ন্ত দেখা যায়নি।৷ গত কয়েকদিনে ডেঙ্গি প্রাণ কেড়েছে বেশ কয়েকজন শিশুর। যাকে কেন্দ্র করে নয়া উদ্বেগ তৈরি হয়েছে।

এই মরশুমের ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরাও। প্রবল জ্বর, এক লাফে কমে যাচ্ছে প্লেটলেট আর তারপর মাল্টি অরগ্যান ফেলিওর- এই ছক আরও চিন্তা বাড়াচ্ছে চিকিৎসকদের। কয়েকদিন আগেই হাওড়ার পিলখানার বাসিন্দা জিশান খান, তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র, তার মৃত্যু হয়েছে। প্রথমে জ্বর এসেছিল তার। রক্ত পরীক্ষার পর জানা যায়, ডেঙ্গিতে আক্রান্ত সে। কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছিল। কিন্তু প্লেটলেট দ্রুত কমতে থাকে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় শিশুটিকে আইসিইউ-তে রাখা হয়েছিল। কিন্তু চিকিৎসকদের চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়ে তার মৃত্যু হয়। কারণ হিসাবে ডেঙ্গির উল্লেখ রয়েছে মৃত্যুর শংসাপত্রে।

বিধান নগর পৌরনি গ্রামের ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের বাগুইআটি পূর্ব নারায়ণ তলার বাসিন্দা বছর আটের ঋত্বিকা সাউ বেশ কয়েকদিন ধরেই জ্বরে আক্রান্ত ছিল সে। এরপর গত মঙ্গলবার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় বিসি রায় শিশু হাসপাতলে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

এছাড়াও আরও কয়েকজন শিশুর ডেঙ্গিতে মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। কিন্তু কেন শিশুরা এভাবে বলি হচ্ছে ডেঙ্গির? কী বলছেন শিশু বিশেষজ্ঞ?

জয়দেব রায়, শিশু বিশেষজ্ঞ, যেমনটা জানাচ্ছেন যে এই মরশুমে ডেঙ্গি সত্যিই ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে৷ অনেক ক্ষেত্রেই শিশুদের হাসপাতালে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে দেরি হয়ে যাচ্ছে। যার ফলে সব রকম চিকিৎসা দেওয়া সত্বেও তা কাজ করছে না।

তিনি যেরকমটা জানাচ্ছেন যে জ্বর হলেই সব রকম সতর্কতা অতি অবশ্যই মেনে চলা উচিত। এই সময় বাচ্চাদের ফুলহাতা জামা পরানো আবশ্যিক।

কলকাতার পাশাপাশি হাওড়া ও হুগলির জেলারও ভয়াবহ অবস্থা। আক্রান্তের সংখ্যা ও মৃত্যুহার দুইই বাড়ছে পাল্লা দিয়ে। জেলায় জেলায় সংক্রমণ বাড়ছে। হাসপাতালে ভর্তিও হচ্ছেন অনেকে।